BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা রুখতে আগামিকাল সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 19, 2020 4:13 pm|    Updated: March 19, 2020 4:14 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা সংক্রমণের জেরে আতঙ্কে দেশবাসী। বেশিরভাগ শহরে ‘লক ডাউন’-এর প্রস্তুতি তুঙ্গে। এমতাবস্থায় দেশের প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আগামিকাল বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুক্রবার বিকেল চারটের সময় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। আজ রাত আটটার সময় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনা আতঙ্কে জর্জরিত বিশ্ব। ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ১৭১, প্রাণ হারিয়েছেন ৩ জন। এরই মধ্যে কীভাবে করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করা হবে তা নিয়ে সার্ক-এর (SAARC) অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির সঙ্গে বৈঠক সারেন প্রধানমন্ত্রী। সেই বৈঠকে নেতৃত্বও দেন তিনি। তবে দেশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের আগে সার্কের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির সঙ্গে মোদি বৈঠক করায় সমালোচনা হয় রাজনৈতিক মহলে। সেই সমালোচনা শুনে অবশ্য পিছপা হননি প্রধানমন্ত্রী। আগামিকালই প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে জানান তিনি। বুধবার সন্ধ্যায় একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। তারপরেই প্রধানমন্ত্রীর অফিসের তরফে টুইট করে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকারি আমলা ও অফিসার পদমর্যাদার কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে নির্দেশিকা পাঠিয়ে বলা হল, ৫০ শতাংশ গ্রুপ বি ও গ্রুপ সি কর্মীদের অফিসে যেতে হবে। সংশ্লিষ্ট হেড ক্লার্ক গ্রুপ বি ও গ্রুপ সি কর্মীকে সূচি ঠিক করে দেবেন। এদিনই সমস্ত কেন্দ্রীয় সরকারি দফতরে এই নির্দেশিকা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ভারতের মধ্যে সবথেকে বেশি করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মহারাষ্ট্রে ও কর্নাটকে। ফলে সচেতনতার প্রচার করতে ও দেশবাসীকে সজাগ রাখতে প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনার পরিকল্পনা করেন সরকার।  প্রধানমন্ত্রীর কাজের তাই ভূয়সী প্রশংসা করেছেন সার্কের অন্তর্ভুক্ত দেশ সহ বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর প্রতিনিধি হেঙ্ক বেকেডাম।

[আরও পড়ুন:করোনার জেরে বন্ধের মুখে আকাশ যাত্রা, টিকিট বাতিলে টাকা ফেরতের আশ্বাস রেলের]

করোনা রুখতে ভারত ব্যাপী প্রতিটি রাজ্যের সরকারি, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কেরলের স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে মানব চিকিৎসকের পাশাপাশি রোবট মানিবকে ব্যাবহার করা হচ্ছে। এই রোবট মানবরাই হাসপাতালে যাওয়া রোগীদের মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ওষুধ দেবে।

[আরও পড়ুন:মজুত রাখুন ৬ মাসের রেশন, করোনা প্রতিরোধে কেন্দ্রের বড় ঘোষণা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement