২৭ আশ্বিন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত মাতা কী জয়, বিজেপি নেতাদের আপ্তবাক্য। সমর্থকদের মধ্যে জাতীয়তাবাদ জাগানোর জন্য দেশপ্রেমের বুলিই অন্যতম ভরসা গেরুয়া শিবিরের। বিরোধীরা বলেন, উগ্র হিন্দুত্ব এবং উগ্র জাতীয়তাবাদই বিজেপির মূল ভরসা। ভারত মাতা কী জয় তথা জয় শ্রী রাম, গেরুয়া শিবিরের প্রধান অস্ত্র। গেরুয়া পন্থীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাঁরা মনে করেন ভারত মাতা কী জয় না বলা মানে দেশকে অশ্রদ্ধ বা অপমান করা। যারা প্রকৃত দেশপ্রেমী তাঁরা ভারত মায়ের জয়গান গাইতে কখনও কুণ্ঠা বোধ করেন না, এমনটাই মনে করেন বিজেপি সমর্থকদের একাংশ।

[আরও পড়ুনদশ বছরে রাহুলের সম্পত্তি ৫৫ লক্ষ থেকে ৯ কোটি! কটাক্ষ বিজেপির]

কিন্তু, গেরুয়া শিবিরের এই মতবাদের ঠিক উলটো মত পোষণ করলেন উপরাষ্ট্রপতি তথা প্রাক্তন বিজেপি সভাপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু। তিনি বললেন, “জাতীয়তাবাদ মানে ভারত মাতা কী জয় নয়। সবার জয় হোক, এটা ভাবাই আসল দেশপ্রেম। আপনি যদি ধর্ম, জাতি গ্রাম-শহরের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করেন, তাহলে আপনার ভারত মাতা কী জয় বলা সার্থক নয়।” দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সঙ্গে আলাপচারিতায় কার্যত বিজেপির উলটো সুরেই কথা বলেন উপরাষ্ট্রপতি। তিনি পড়ুয়াদের উদ্দেশ্যে বলেন, ” ঐতিহ্য সম্পর্কে, সামাজিক সচেতনতা সম্পর্কে, শান্তিপ্রিয় মানসিকতা সম্পর্কে আমাদের শিখতে হবে। অবক্ষয়, অন্যায়, লিঙ্গবৈষম্যের মতো সামাজিক অপরাধের বিরুদ্ধে লড়তে হবে আমাদের।”

[আরও পড়ুনরাহুল গান্ধীকে বিষ পান করার পরামর্শ দিয়ে বিতর্কে বিজেপি বিধায়ক]

বেঙ্কাইয়া নায়ডু আদতে দক্ষিণ ভারতের মানুষ। দক্ষিণে প্রবল হিন্দি বিরোধী আন্দোলন চলার মধ্যেও তিনি ছিলেন হিন্দিপন্থী। যতদিন সরাসরি বিজেপির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ততদিন উগ্র জাতীয়তাবাদের পক্ষেও সওয়াল করেছেন। কিন্তু সাংবিধানিক পদে যেতেই এযেন অন্য বেঙ্কাইয়া। বিরোধীরা বলছেন, উগ্র জাতীয়তাবাদীদের আয়না দেখালেন তিনি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং