১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শনিবার ২৮ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ওমিক্রনের গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে, দাপট বেশি বড় শহরগুলিতেই, দাবি কেন্দ্রের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: January 23, 2022 4:08 pm|    Updated: January 23, 2022 4:38 pm

Omicron In Community Transmission Stage Says covid committee of center | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বর্তমানে গোষ্ঠী সংক্রমণ (Community Transmission) শুরু হয়েছে ওমিক্রনের (Omicron)। ভাইরাসের দাপট বেশি দেশের বড় শহরগুলিতে। রবিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের করোনা (Covid) ভাইরাস সংক্রান্ত বিশেষজ্ঞ কমিটির (INSACOG) প্রকাশিত বুলেটিনে জানানো হল এমনই তথ্য।

উল্লেখ্য, স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এই বিশেষজ্ঞ কমিটি দেশে করোনো ভাইরাসের গতিপ্রকৃতির উপর নজর রাখে। কীভাবে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে এবং তা রোখার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা কী হতে পারে ইত্যাদি বিষয়ে মন্ত্রককে পরামর্শ দিয়ে থাকে এই কমিট। সেই কমিটি জানিয়েছে, ভারতে ওমিক্রনের একটি উপ-ভ্যারিয়েন্টেরও (BA.2) হদিশ মিলেছে।

গত ১০ জানুয়ারির বুলেটিনে কমিটি জানিয়ে ছিল, যদিও ওমিক্রনে সংক্রমিতদের অধিকাংশই উপসর্গহীন তথাপি হাসপাতালে ভরতির সংখ্যা দিনে দিনে বাড়ছে। আইসিইউ (ICU) বেডের চাহিদাও বাড়ছে। ফলে তৃতীয় ঢেউয়েও (Third Wave) কোভিড নিয়ে আশঙ্কা দূর হয়েছে, এমনটা বলা যাচ্ছে না এখনই।

[আরও পড়ুন: করোনা কাঁটা, নিজের বিয়ে পিছিয়ে দিলেন এই দেশের প্রধানমন্ত্রী]

নতুন করে বলা হয়েছে, বর্তমানে ওমিক্রনের গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে। ভাইরাস তার দাপট দেখাচ্ছে প্রধানত বড় শহরগুলিতেই। ফলে সেখানে হুড়মুড় করে বাড়ছে করোনায় সংক্রমিতের সংখ্যা। তবে ওমিক্রনের অতি সংক্রমক উপ-ভ্যারিয়েন্ট খুব সামান্য মাত্রাতেই ভারতে সক্রিয়। 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের বিশেষজ্ঞ কমিটি আরও জানিয়েছে, এখন আর বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের থেকে ওমিক্রনে সংক্রমিত হওয়ার প্রসঙ্গটি থাকছে না, যেহেতু তা গোষ্ঠী সংক্রমণের চেহারা নিয়ে ফেলেছে ইতিমধ্যেই। কমিটি আরও জানিয়েছে, মাস্ক পরা, ভিড় এড়ানো, স্যানিটাইজারের ব্যবহারের মতো করোনার বিধিনিষেধগুলি ও ভ্যাকসিনেশনই বর্তমান পরিস্থিতিতে একমাত্র ঢাল হতে পারে কোভিডের সঙ্গে যুদ্ধে।

[আরও পড়ুন: টিকা না নিলেই বাড়ছে মৃত্যুর ঝুঁকি! করোনায় মৃতদের ৬০ শতাংশই আংশিক বা সম্পূর্ণ টিকাহীন]

প্রসঙ্গত, শুক্রবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা (Coronavirus) আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৩৩ হাজার ৫৩৩ জন। পটিজিভিটি রেট ফের বেড়ে হয়েছে ১৭.৭৮ শতাংশ। পরিসংখ্যান বলছে, দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে মহারাষ্ট্র খানিকটা স্বস্তির খবর শোনালেও নতুন করে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে দক্ষিণের রাজ্যগুলি। কেরল, কর্ণাটকে আক্রান্তের সংখ্যাটা রীতিমতো ভয় ধরানোর মতো।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৫২৫ জনের। এই সংখ্যাটাও আগের দিনের থেকে অনেকটা বেশি। এখনও পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ৪ লক্ষ ৮৯ হাজার ৪০৯ জন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে