৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কলকাতার রাস্তায় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শো-কে ঘিরে গন্ডগোল। তার জেরে বিদ্যাসাগর কলেজের ভিতরে থাকা বর্ণপরিচয়ের স্রষ্টার মূর্তি ভাঙচুর। গত দুদিন ধরেই এই বিষয় নিয়েই উত্তাল হয়ে পড়েছে দেশ তথা রাজ্যের রাজনীতি। সময় ও কালের গণ্ডি পেরিয়ে লোকসভার সপ্তম দফার আগে ফের প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে বিদ্যাসাগর মহাশয়ও! এই টানাপোড়েনের মাঝেই যেখানে তাঁর মূর্তি ভাঙা হয়েছে সেখানে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের সুবিশাল মূর্তি তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের মৌ এলাকায় নির্বাচনী জনসভা করতে গিয়ে এই প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

[আরও পড়ুন- সীমান্তে ওত পেতে পাকিস্তানি ট্যাঙ্ক, মিসাইল সিস্টেম মোতায়েন করছে ভারত]

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের পর এবার তিনিও মূর্তি ভাঙার জন্য দায়ী করলেন তৃণমূলকেই। জনসভায় বক্তব্য রাখার সময় ভাঙা মূর্তি ফের তৈরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, “কলকাতায় ভাই অমিত শাহের সভার সময় তৃণমূল কর্মীদের গুন্ডামি ফের প্রত্যক্ষ করেছি আমরা। ওরা ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে। এর জন্য ওদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে আমরাও বিদ্যাসাগরের আদর্শে বিশ্বাসী। তাই কথা দিচ্ছি ওই একই জায়গাতে বিদ্যাসাগরের পঞ্চধাতুর মূর্তি পুনরায় প্রতিস্থাপিত করে তৃণমূলের গুন্ডাদের উচিত জবাব দেব।”

[আরও পড়ুন- ‘ঐতিহাসিক সত্য বলেছি’, গডসেকে ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলা নিয়ে সাফাই কমল হাসানের]

মঙ্গলবার অমিত শাহের রোড শো-কে ঘিরে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে কলেজ স্ট্রিট চত্বর৷ সন্ধের পর থেকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে অমিত শাহর রোড শো আটকে বিক্ষোভ দেখান টিএমসিপি-র সদস্যরা৷ কালো পতাকা, ‘গো ব্যাক’ স্লোগান লেখা পোস্টার নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটে বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি যাত্রাপথ আটকেও দাঁড়ানো হয় বলে অভিযোগ৷ সেখান থেকেই সমস্যার সূত্রপাত হয়। মিছিলে থাকা বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে টিএমসিপি সদস্যদের হাতাহাতি বেঁধে যায়৷ এরপরই কলেজের মধ্যে থাকা বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুর করা হয়। যা নিয়ে টানাপোড়েন শুরু হয় বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে। রাজ্যের শাসকদলের পক্ষ থেকে ওই সময়ের একটি ভিডিও প্রকাশ করে দাবি করা হয়, ঘটনাটি গেরুয়া ঝাণ্ডাধারীরাই ঘটিয়েছে। উলটোদিকে তাদের কালিমালিপ্ত করার জন্য তৃণমূল পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করে বিজেপি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং