BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘বাংলা আজ যা ভাবে, কাল ভাবে গোটা দেশ’, মমতার সুরেই শিল্পায়নে জোর মোদির

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 11, 2020 12:02 pm|    Updated: June 11, 2020 12:27 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ” What Bengal thinks today, India thinks tomorrow” অর্থাৎ ‘বাংলা আজ যা ভাবে, কাল গোটা ভারত তাই ভাবে’। বাংলার প্রশংসা করতে গিয়ে এই বহু প্রচলিত মন্তব্যকেই হাতিয়ার করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাজ্যে শিল্পায়নের স্লোগান প্রধানমন্ত্রীর গলায়। বললেন, বাংলার হারিয়ে যাওয়া গৌরব ফিরিয়ে আনতে পাট শিল্পের উন্নয়ন করতে হবে। গড়ে তুলতে হবে অনুসারী শিল্প। তবে শুধু শিল্পে নয়, গোটা উত্তর-পূর্ব ভারতের জৈব চাষের বিকাশে কলকাতা নেতৃত্ব দিতে পারে বলেও মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার ইন্ডিয়ান চেম্বার্ অব কর্মাসের(ICC) এক ভার্চুয়াল সভায় যোগ দিয়ে এই বার্তা দিলেন নরেন্দ্র মোদি। বাংলার উন্নয়নের কথা বলতে গিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার পঙতিও উদ্ধৃত করেন প্রধানমন্ত্রী। বাংলার শিল্পায়নে আইসিসি বা বণিকসভাকেও এগিয়ে আসতেও আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রসঙ্গত, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার এই কথা বলে এসেছেন। এবার সেই একই সুর শোনা গেল প্রধানমন্ত্রীর গলাতেও।

এদিন বাংলার হারিয়ে যাওয়া গৌরব ফিরিয়ে আনার উপর জোর দেন নরেন্দ্র মোদি। তাঁর কথায়, “উৎপাদন শিল্পে বাংলার গৌরব ফেরাতে হবে। উৎপাদন ক্ষেত্রে দেশের মধ্যে শ্রেষ্ঠ ছিল ভারত। সেই গৌরব ফিরিয়ে আনতে হবে।” কৃষকদের উন্নয়ন করতেই শিল্পে জোর দিতে হবে বলে মত প্রধানমন্ত্রীর। তাঁর কথায়, “যেখানে যে ফসল বেশি পরিমাণে উৎপন্ন হয়, সেখানে সেই ফসলকে কেন্দ্র করে শিল্প গড়ে তুলতে হবে।” এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়েই বাংলার পাট ও বাঁশ শিল্পের উপর জোর দেওয়ার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “বাংলায় প্রচুর পাট ও বাঁশ উৎপন্ন হয়। তাই এগুলিকে নিয়ে ক্লাস্টার গড়ে তুলতে হবে।” পাটশিল্পকে কেন্দ্র করে অনুসারী শিল্প গড়ে তোলারও পরামর্শ দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর কথায়, পরিবেশ রক্ষায় পাটের অবদান অবিস্মরণীয়। সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক ব্যবহার কমায় পাটের চাহিদা বাড়ছে। সেই চাহিদা কাজে লাগিয়ে বাংলার বণিক মহলকে সারা দেশে পাটের বিপণন বাড়াতে পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “পশ্চিমবঙ্গে জুট কিষান  উদ্যোগের জন্য ক্লাস্টার তৈরি হবে। একবার ভেবে দেখুন তো, বাংলায় তৈরি পাটের ব্যাগ সারা দেশের মানুষের হাতে থাকতে রাজ্যের কী বিরাট উপকার হবে।”

[আরও পড়ুন : উত্তপ্ত কাশ্মীর সীমান্ত, পাক সেনার গুলিতে শহিদ এক জওয়ান]

একইসঙ্গে, কলকাতা  আবার গোটা দেশকে নেতৃত্ব দেবে বলেও মনে করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদি। তাঁর কথায়, “শুধুমাত্র সিকিম নয়, গোটা উত্তর-পূর্ব ভারত জৈব চাষের হাব তৈরি হতে পারে। সেই কাজে কলকাতা নেতৃত্ব দিতে পারে।” তবে এদিন প্রধানমন্ত্রীর গলায় বাংলার গুনগান শুনে, এর পিছনে বিশেষ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য দেখছেন রাজনৈতিক মহল। তাঁদের কথায়, সামনই বাংলার বিধানসভা নির্বাচন। আর তাতে বাংলার শিল্পায়নকে হাতিয়ার করে লড়াই করতে পারে বিজেপি। এদিন সেই পথই কার্যত সুগম করে দিয়ে গেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

[আরও পড়ুন : ফের নৃশংসতা কেরলে, টানা দু’সপ্তাহ বেঁধে রাখা হল কুকুরের মুখ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement