BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

অপহৃত ২ যুবকের পুরুষাঙ্গে আগুন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট অভিযুক্তদের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 23, 2019 1:42 pm|    Updated: May 23, 2019 1:42 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আলোয়ারের গণধর্ষণের পর ফের পাশবিক যৌন নির্যাতনের ঘটনায় উত্তেজনা ছড়াল রাজস্থানে। দু’জনকে অপহরণ করে তাদের পুরুষাঙ্গে আগুন লাগিয়ে দিল ছ’জন দুষ্কৃতী। এমনকী সেই ঘটনার ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্টও করে দেয়। নারকীয় এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের সিকর জেলার ধোদ এলাকায়। নির্যাতিতদের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি তারা।

গত ১৭ মে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন ধোদ গ্রামের বাসিন্দা করমবীর ও তাঁর ভাই অবিনাশ। সেসময় তাঁদের জোর করে একটি গাড়িতে তোলে অভিযুক্ত সন্দীপ নেহেরা ও তার পাঁচ সঙ্গী। তারপর দু’ভাইকে বেধড়ক মারধর করে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর তাঁদের জামাকাপড় খুলিয়ে পুরুষাঙ্গে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। এমনকী সেই ঘটনার ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করে দেয়। পরে তাঁদের কাছে থাকা ৩ হাজার ৮০০ টাকা কেড়ে নিয়ে ছেড়ে দেয়। তবে তার আগে পুলিশের কাছে মুখ খুললে প্রাণে মারার হুমকিও দেয় অভিযুক্তরা। মঙ্গলবার নির্যাতিত দুই ব্যক্তির তরফে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন- ইতিহাস গড়লেন ভাবনা,বায়ুসেনার যুদ্ধবিমানে চালকের আসনে প্রথম মহিলা]

এপ্রসঙ্গে বুধবার পুলিশ জানায়, করমবীর ও অবিনাশের অভিযোগের ভিত্তিতে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। বর্তমানে তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করে চিকিৎসা করা হচ্ছে। অভিযুক্তদের সন্ধানে তল্লাশি চালানো হলেও তারা এখনও পলাতক। খুব তাড়াতাড়ি তাদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে বলেই জানিয়েছেন পুলিশ আধিকারিকরা।

[আরও পড়ুন- মোদি ঝড়ে বাঁধ ভাঙল সেনসেক্স, ৪০ হাজার পয়েন্ট পেরোল সূচক]

কিছুদিন আগে রাজস্থানের আলোয়ারে এক দলিত যুবতীকে গণধর্ষণের ঘটনায় প্রবল উত্তেজনা ছড়ায়। নির্যাতিতা থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে বলা হয়, ভোট চলছে। তাই এখন অপরাধীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। একথা জানাজানি হতে বিজেপির কড়া সমালোচনার মুখে পড়ে রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার। এমনকী সরকারের সমর্থক বিএসপি-ও কংগ্রেসের নিন্দা করে। এরপরই নির্যাতিতার বাড়িতে যান কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। ধর্ষিতা ও তাঁর পরিবারকে আশ্বস্ত করে বলেন, চিন্তা নেই, আপনারা ন্যায়বিচার পাবেন। তাঁর এই মন্তব্যের পরেই ছ’জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement