BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দুস্থদের জন্য তৈরি কমিউনিটি কিচেনে থুতু ফেলার জের, জরিমানা বিজেপি বিধায়কের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 2, 2020 6:47 pm|    Updated: May 2, 2020 7:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে প্রকাশ্যে থুতু ফেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সরকারি নির্দেশ অমান্য করে থুতু ফেললে জরিমানাও করা হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। এবার সরকার পরিচালিত কমিউনিটি কিচেনের মধ্যে থুতু ফেলে জরিমানা দিলেন এক বিজেপি বিধায়ক। মে মাসের প্রথমদিনেই ঘটনাটি ঘটেছে গুজরাটের রাজকোটে। বিষয়টি প্রকাশ্য আসার পরেই সমালোচনা শুরু হয়েছে দেশজুড়ে।

fine-receipt

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতে লকডাউনের সময়সীমা বৃদ্ধি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এর ফলে সবথেকে বেশি সমস্যায় পড়েছেন পরিযায়ী শ্রমিক ও দুস্থ পরিবারগুলি। এই পরিস্থিতিতে বিভিন্ন জায়গায় তাঁদের মুখে খাবার তুলে দিতে কমিউনিটি কিচেনের ব্যবস্থা করেছে সরকার ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলি। অন্য জায়গার মতো রাজকোটেও এই ধরনের কমিউনিটি কিচেন খোলা হয়েছে। দুদিন আগে সেখানকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন স্থানীয় বিধায়ক অরবিন্দ রায়ানি। আর তখনই গুটকা বা পানজাতীয় কিছু একটা খেয়ে রান্নার জায়গার পাশেই থুতু ফেলেন তিনি। সেই মুহূর্তে এই বিষয়টি নিয়ে শোরগোল না উঠলেও এই ঘটনার ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই উত্তেজনা তৈরি হয়। নড়েচড়ে বসে স্থানীয় পুরসভাও। তারপর ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয় ওই বিধায়কের।

[আরও পড়ুন: ‘শ্রমিক স্পেশ্যাল’ ট্রেনের খরচ দিতে হবে রাজ্যকেই, জেনে নিন কত ভাড়া ]

আর বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক হচ্ছে দেখে শুক্রবার সেই জরিমানার রসিদের ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করেন ওই বিধায়ক অরবিন্দ রায়ানি (Arvind Raiyani)। তারপরেও অবশ্য পরিস্থিতির কোনও পরিবর্তন হয়নি। তাঁর এই কাজের তীব্র সমালোচনা করে বিরোধীরা।

এপ্রসঙ্গে রাজকোটের কংগ্রেস নেতা ভিরাল ভাট বলেন, দেশের বিভিন্ন জায়গায় সাধারণ মানুষ লকডাউনের নিয়ম ভেঙে পুলিশের কাছে শাস্তি পাচ্ছেন। আর বিজেপির গুণ্ডারা যা ইচ্ছা তাই করছে। এই ধরনের কাজ করার পরেও তাঁর মনে হয়নি যে মানুষকে কোন বিপদের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন তিনি। পাশাপাশি এই ঘটনা প্রমাণ করে দিয়েছে যে লকডাউনের জন্য যখন পানের দোকান বন্ধ তখন বিজেপির লোকেরা ঠিক নিজেদের নেশার জিনিস জোগাড় করে নিচ্ছে। এমনকী সরকারি নির্দেশ অমান্য করে অনেকে প্রকাশ্যে মাস্ক পরেও ঘুরছেন না।

[আরও পড়ুন: করোনা চিকিৎসায় আলো দেখাতে পারে ফ্যামোটিডিন অ্যান্টাসিড! দাবি বিশেষজ্ঞদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement