৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৮ অক্টোবরের মধ্যে অযোধ্যা মামলার শুনানি শেষ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। সেই অনুযায়ী সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে বহু প্রতীক্ষিত এই মামলার চূড়ান্ত শুনানি। এদিকে এই ঘটনার জেরে শান্তিশৃঙ্খলার যাতে কোনও অবনতি তার দিকে কড়া নজর রেখেছে কেন্দ্র। প্রস্তুত রয়েছে যোগী প্রশাসনও। রবিবার থেকে অযোধ্যাজুড়ে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। আগামী ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত তা বজায় থাকবে। 

[আরও পড়ুন: ‘ইমরান চাইলে পাকিস্তানে সেনা পাঠিয়ে সাহায্য করবে ভারত’, বললেন রাজনাথ]

মধ্যস্থতা প্রক্রিয়া ব্যর্থ হওয়ার পরে গত ৬ আগস্ট সর্বোচ্চ আদালতে শুরু হয় অযোধ্যা মামলার শুনানি। আর প্রথমেই পাঁচ বিচারপতিকে নিয়ে গঠিত সুপ্রিম কোর্টের সাংবিধানিক বেঞ্চের নেতৃত্বে থাকা রঞ্জন গগৈ পরিষ্কার জানিয়ে দেন, ১৮ অক্টোবরের মধ্যে শুনানি শেষ করতে হবে। দরকারে সপ্তাহের ৬ দিনই শুনানি হবে। এরপরই দ্রুতগতিতে এগোয় এই মামলার কাজ। মাঝে দশেরার ছুটি থাকায় আদালত বন্ধ ছিল। আজ, ১৪ অক্টোবর তার খোলার কথা। ফলে শুনানি শেষ করার জন্য আর মাত্র চারদিন বাকি আছে। ফলে ক্রমশই চড়ছে উত্তেজনার পারদ।

ইতিমধ্যেই রাম জন্মভূমির বিতর্কিত জমিতে দীপাবলির দিন ৫১০০ প্রদীপ জ্বালানোর কথা ঘোষণা করেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। বিষয়টি শোনার পরেই তীব্র আপত্তি জানায় বাবরি মসজিদ অ্যাকশন কমিটি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে রবিবার থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত পুরো অযোধ্যায় ১৪৪ ধারা জারি করার কথা ঘোষণা করেন জেলাশাসক অনুজ ঝা।

[আরও পড়ুন:জঙ্গলে গা ঢাকা দিয়েও নিস্তার নেই, সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার উলফা সদস্য]

গত শনিবার বিশ্ব হিন্দু পরিষদের তরফে জানানো হয়েছিল, দীপাবলির দিন রাম মন্দিরের জমিতে ৫১০০টি প্রদীপ জ্বালানোর দাবি নিয়ে ফৈজ়াবাদের ডিভিশনাল কমিশনার মনোজ মিশ্রের সঙ্গে দেখা করবে তারা। যদিও ওই আধিকারিক মিশ্র জানিয়েছেন, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের বাইরে গিয়ে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের অনুমতি মিলবে না। এই পরিস্থিতিতে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ কী পদক্ষেপ নেয় সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং