১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘পুলওয়ামা হামলায় যখন সবাই শোকার্ত, তখনও রাজনীতি করেছিল’, বিরোধীদের কটাক্ষ প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Biswadip Dey |    Posted: October 31, 2020 10:41 am|    Updated: October 31, 2020 12:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুলওয়ামা হামলায় (Pulwama attack) যখন দেশের জওয়ানরা শহিদ হয়েছিলেন, তখনও কিছু মানুষ নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ দেখছিল। দেশ এই জাতীয় মানুষদের ভুলতে পারবে না। এভাবেই সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মদিন উপলক্ষে জাতীয় ঐক্য দিবসের বক্তৃতায় বিরোধীদের বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)।

এদিন স্ট্যাচু অফ ইউনিটিতে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলকে শ্রদ্ধা জানানোর পর বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। তখনই তাঁর কথায় উঠে আসে পুলওয়ামা প্রসঙ্গ। তিনি বলেন, ‘‘একটু আগে আধা সেনার প্যারেড দেখতে দেখতে মনে পড়ছিল পুলওয়ামা হামলার কথা। সেই হামলায় আমাদের যে বীর সঙ্গীরা শহিদ হয়েছিলেন, তাঁরা আধা সেনারই অংশ ছিলেন। সেই সময় গোটা দেশ শোকার্ত ছিল। কিন্তু তখনও কিছু লোক নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ দেখছিল‌। সেই সময় আমার হৃদয়ে বীর শহিদদের গভীর ক্ষত ছিল। তাই বিরোধীদের সমস্ত অশ্লীল অভিযোগ আমি চুপচাপ সহ্য করে গেছি।’’

[আরও পড়ুন: রাজ্যের ‘ব্যর্থতা’য় দুর্গাপুর ব্যারেজের লকগেটে ফাটল, অভিযোগ বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকারের]

সম্প্রতি পুলওয়ামা হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তান! পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়েই সে কথা জানিয়েছেন ইসলামাবাদের মন্ত্রী। সেই প্রসঙ্গ তুলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘আজ পড়শি দেশ থেকে যে খবর পাওয়া গেছে, যেভাবে সেখানকার সংসদে সত্যিটা স্বীকার করা হয়েছে, তা এই লোকগুলির আসল চেহারা দেশের সামনে ফুটিয়ে তুলেছে। দয়া করে এমন রাজনীতি করবেন না। এই ধরনের কাজ থেকে দূরে থাকুন। এতে জেনে বা না জেনে আপনারা দেশবিরোধী শক্তির বোড়ে হয়ে উঠছেন। এভাবে আপনারা দেশের উপকার করতে পারবেন না। নিজেদের দলেরও ভালো করতে পারবেন না।’’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ইমরান খানের মন্ত্রিসভার সদস্য পাকিস্তানের যুক্তরাষ্ট্রীয় মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী ‘সদর্পে’ ঘোষণা করেন, “পুলওয়ামা আমাদের সাফল্য। ঘরে ঢুকে ভারতকে মেরেছি।” তাঁর এই মন্তব্যের পরই সংসদের অন্দরে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়ে যায়। তিনিও নিজের ‘ভুল’ বুঝতে পেরে তড়িঘড়ি মন্তব্য বদল করেন। কিন্তু ততক্ষণে তা ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র।

এদিন প্রধানমন্ত্রীর কথায় উঠে আসে অতিমারী প্রসঙ্গও। তিনি বলেন, ভারত তার ঐক্যের বলেই শক্তিশালী হয়ে করোনার মোকাবিলা করতে পেরেছে। এবার দেশ এই পরিস্থিতি থেকে মুক্ত হতে শুরু করেছে। পাশাপাশি একজোট হয়ে সামনের দিকে এগোতেও শুরু করেছে। এছাড়াও ৩৭০ ধারা এবং সীমান্তে চিনের আগ্রাসনে প্রসঙ্গেও বক্তব্য রাখেন তিনি।

[আরও পড়ুন: সফর বাতিল নাড্ডার, নির্বাচনের ডঙ্কা বাজিয়ে রাজ্যে আসছেন অমিত শাহ]

সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মদিন উপলক্ষে দু’দিনের গুজরাট সফরে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুক্রবার বিশ্বের সর্বোচ্চ মূর্তি ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’ যেখানে অবস্থিত, সেই কেবাডিয়াকে পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় এক ‘স্পট’ হিসেবে গড়ে তুলতে চারটি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন তিনি। এই দু’দিনে এখানে মোট সতেরোটি প্রকল্পের উদ্বোধন করার কথা তাঁর।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement