BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শতাব্দী এক্সপ্রেসে চায়ের কাপে ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’, বিতর্কে বিজেপি

Published by: Sayani Sen |    Posted: March 29, 2019 5:58 pm|    Updated: April 22, 2019 3:54 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:ম্যায় ভি চৌকিদার’৷ নেটদুনিয়া পেরিয়ে মোদির এই স্লোগান স্থান পেল এক্কেবারে চায়ের কাপে৷ তাও আবার দেখা গেল শতাব্দী এক্সপ্রেসের মতো বিলাসবহুল ট্রেনের কামরায় বিলি করা চায়ের কাপে৷ ভোটের আবহে এই কাপ নিয়ে মাথাচাড়া দিয়েছে বিতর্ক৷ বিরোধীদের দাবি, ভারতীয় রেলকে হাতিয়ার করেই নাকি ভোটপ্রচার করছে গেরুয়া শিবির৷ যদিও তা মানতে নারাজ বিজেপি৷ কাপ সরবরাহকারী সংস্থাকেই দায়ী করেছে ভারতীয় রেল৷

[ আরও পড়ুন: বারাণসীতে মোদির বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কা? জল্পনা উসকে দিলেন রাজীব তনয়া নিজেই]

শতাব্দী এক্সপ্রেসের মতো বিলাসবহুল ট্রেনে যাত্রাপথে দু’বার চা সরবরাহ করা হয়৷ সম্প্রতি দেখা গেল, ওই কাপের গায়ে হিন্দি ভাষায় লেখা রয়েছে ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’৷ এই কাপের ছবি তোলেন এক যাত্রী৷ ওই ছবিটি টুইট করেন তিনি৷ প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই নেটদুনিয়ায় তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে যায়৷

[আরও পড়ুন: প্রার্থী হওয়া নিয়ে মাথাব্যথা নেই, মানুষের জন্য কাজ করতে চান অগ্নিমিত্রা]

বিরোধীদের অভিযোগ, শতাব্দী এক্সপ্রেসে প্রতিদিন বহু যাত্রী চা পান করেন৷ তাঁদের ব্যবহৃত কাপে ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’ লিখে নাকি সুপরিকল্পিতভাবে ভোটপ্রচার করছে গেরুয়া শিবির৷ ভারতীয় রেলের মাধ্যমে ভোটপ্রচার নির্বাচনী বিধি লঙ্ঘন বলে আক্রমণ করতেও ছাড়েননি বিরোধীরা৷

শুধু চায়ের কাপ নয়৷ ভোটের আবহে বাজারে ছড়িয়ে গিয়েছে একটি টিপের পাতাও৷ পরশ কোম্পানির ওই টিপের পাতায় রয়েছে মোদির ছবি এবং বিজেপির প্রতীক পদ্মফুল৷  

দুটি ঘটনা নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনার অন্ত নেই৷ মোদি বিরোধী নেটিজেনরা এ নিয়ে মশকরা শুরু করেছেন৷ অনেকেই বলছেন, চিরকাল চা-ই ভরসা মোদির৷ চায়ে পে চর্চার পর এবার নাকি ভোটের আবহে চায়ের কাপই ব্রহ্মাস্ত্র গেরুয়া শিবিরের৷ আবার কেউ কেউ পাশে দাঁড়িয়েছে বিজেপির৷ তাঁদের সাফাই, এটা কোনওমতেই ভোটপ্রচারের মাধ্যম হতে পারে না৷ গেরুয়া শিবিরের এভাবে প্রচারের কোনও উদ্দেশ্য নেই৷ ভুল করে এমন কাণ্ড ঘটেছে বলেও দাবি বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের৷

[ আরও পড়ুন: ‘সেলুলয়েডের মোদি জনমানসে প্রভাব ফেলবেই’, কমিশনকে জবাব নির্মাতাদের]

ভারতীয় রেল যদিও বিরোধীদের সমবেত অভিযোগ শুনে নড়েচড়ে বসেছে৷ কর্তৃপক্ষের দাবি, সংকল্প ফাউন্ডেশন নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ওই কাপগুলি সরবরাহ করে৷ অভিনবত্বের তাগিদে অত্যুৎসাহী হয়ে এই কাজ করেছে ওই সংস্থা৷ মোদি সরকার কোনওভাবেই ভারতীয় রেলে ব্যবহৃত কাপকে প্রচারের হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করছে না বলেই দাবি কর্তৃপক্ষের৷ ইতিমধ্যেই রেলের তরফে ওই সরবরাহকারী সংস্থাকে শোকজ করা হয়েছে৷ এছাড়া ওই সংস্থার কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা জরিমানাও চাওয়া হয়েছে৷ তবে টিপের পাতা নিয়ে এখনও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে শোনা যায়নি৷ 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement