BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

একহাতে বন্দুক ও অন্যহাতে দুধের প্যাকেট, শিশুর খাবার পৌঁছে দিয়ে ‘হিরো’ আরপিএফ জওয়ান

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: June 6, 2020 9:25 am|    Updated: June 6, 2020 9:25 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একহাতে বন্দুক, অন্যহাতে দুধের প্যাকেট নিয়ে স্টেশনের বাইরে বেরিয়ে যাওয়া ট্রেনের পিছনে ছুটছেন আরপিএফ জওয়ান। কেন? শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনে পরিযায়ীদের মধ্যে রয়েছে এক দুধের শিশু, যে কিনা পুরো ১ দিন ধরে অভুক্ত ছিল, তার মুখে একটু খাবার তুলে দেওয়ার জন্য। ঝড়ের গতিতে দৌড়ে অবশেষে বাচ্চার মায়ের হাতে দুধের প্যাকেট তুলে দিয়েছেন সেই আরপিএফ জওয়ান। তাঁর এমন মানবিক উদ্যোগ দেখে পরিযায়ী শ্রমিক, স্টেশনের কর্মীরা তো বটেই, বরং ভিডিও শেয়ার করে প্রশংসায় পঞ্চমুখ রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল স্বয়ং।

লকডাউনে ভিন রাজ্যে আটকে থাকা পরিযায়ীদের জন্য শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। এই দুর্দিনে বাড়ি ফিরতে মরিয়া তাঁরা। তবে তার মাঝেও ভোগান্তির শেষ নেই তাঁদের। অনেক ট্রেনই প্রায় আট-দশ ঘণ্টা দেরীতে চলছে। উপরন্তু খাবার ও জলকষ্ট তো রয়েইছে। অনেকের কাছেই টাকা নেই। অনেকে আবার বাচ্চা-বুড়ো নিয়ে একা সফর করায় ভয় পাচ্ছেন যে স্টেশনে নামলে এই যদি ট্রেন বেরিয়ে যায়, কিংবা বসার জায়গা বেদখল হয়ে যায়, তার চেয়ে বরং এই ভাল! কোনওরকমে বাড়ি ফিরতে পারলে হাফ ছেড়ে বাঁচেন তাঁরা। সেরকমই কর্ণাটক থেকে উত্তরপ্রদেশের গোরখপুরে যাচ্ছিল শ্রমিক স্পেশ্যাল একটি ট্রেন। সেই ট্রেনেই সালমা হাসমি নামে এক মহিলা তাঁর ৩ মাসের অভুক্ত শিশুর জন্য খাবারের সন্ধান করতে নাজেহাল হয়ে গিয়েছিলেন। সেখানেই ত্রাতার মতো অবতরণ করেন সেই আরপিএফ জওয়ান।

[আরও পড়ুন: লকডাউনের বিধি অমান্য করে যোগীরাজ্যে শোভাযাত্রা পুলিশ কর্মীদের, বরখাস্ত এক আধিকারিক]

শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনটি কয়েক ঘণ্টা দেরীতে চলছিল। এদিকে সালমার কাছে পর্যাপ্ত খাবারও ছিল না। ফলে প্রায় গোটা একটা দিন খিদের জ্বালা নিয়েই কাটাতে হয় একরত্তি সেই শিশুটিকে। ট্রেন ভোপাল স্টেশনে ঢুকলে আরপিএফ জওয়ান ইন্দর যাদবকে দেখতে সামনে দেখতে পান সালমা। অনুরোধ করেন, বাচ্চার জন্য একটু দুধের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য। যা শুনে, বিন্দুমাত্র দেরী করেননি ইন্দর। সময় নষ্ট না করে তৎক্ষণাৎ স্টেশনের বাইরে থেকে দুধ কিনে আনেন। কিন্তু ফিরে এসে দেখেন, ট্রেন চলতে শুরু করে দিয়েছে। এরপরই এক হাতে সার্ভিস রাইফেল আর অন্য হাতে দুধের প্যাকেট নিয়ে চলন্ত ট্রেনের পিছনে ছুটতে শুরু করেন ইন্দর। তারপর সেই দুধের প্যাকেট তুলে দেন শ্রমিক মায়ের হাতে। আরপিএফ জওয়ানের সেই দৌড়ের ভিডিও ওঠে স্টেশনের সিসিটিভিতে।

স্টেশনের ওই সিসিটিভি ফুটেজেরই ভিডিও শেয়ার করে আরপিএফ জওয়ান ইন্দর যাদবের প্রশংসা করেন স্বয়ং রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। এমন দুর্ভোগে থাকা পরিযায়ী মায়ের হাতে তাঁর অভুক্ত বাচ্চার জন্য দুধের প্যাকেট তুলে দিয়ে, ইন্দর সারা দেশের সামনে মানবিকতার এক নয়া দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। প্রশংসাস্বরূপ রেলমন্ত্রী তাঁকে ‘উসেন বোল্ট’-এর আখ্যাও দিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: ‘নতুন ভারতে সবসময় মুসলিমদেরই খলনায়ক বানানো হয়’, অভিযোগ মেহবুবা মুফতির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement