২৫ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অযোধ‌্যা মামলার রায় হিন্দুদের পক্ষেই যাবে বলে আশাপ্রকাশ করল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ। ইতিমধ্যেই মধ্যস্থতাকারী কমিটির ফাঁস হওয়া রিপোর্ট নিয়ে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। চূড়ান্ত শুনানির শেষলগ্নে এই রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসার পিছনে অন্তর্ঘাত রয়েছে বলেও অভিযোগ করছে কেউ কেউ। পাশাপাশি এই রিপোর্টের তীব্র বিরোধিতা করেছে অযোধ্যা মামলায় অংশ নেওয়া ৬টি মুসলিম সংগঠন। ঠিক সেই সময় ওড়িশার ভুবনেশ্বরে আয়োজিত কর্মসূচিতে গিয়ে রায় হিন্দুদের পক্ষেই যাবে বলে মন্তব্য করলেন সংঘের সাধারণ সম্পাদক সুরেশ ভাইয়াজি যোশী।

[আরও পড়ুন: মুসলিম ভাবাবেগে আঘাতের জেরেই খুন উত্তরপ্রদেশের হিন্দুত্ববাদী নেতা]

শুক্রবার ভুবনেশ্বরে অখিল ভারতীয় কার্যকরী মণ্ডলীর বৈঠকে অংশ নিতে গিয়েছিলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের সেকেন্ড ম্যান ভাইয়াজি। সেখানে একটি সাংবাদিক বৈঠক করার সময় তিনি বলেন, ‘অযোধ‌্যা মামলার রায় হিন্দুদের পক্ষেই যাবে বলে মনে করছি আমরা। এর আগে অযোধ‌্যা মামলা আদালতের বাইরে আলোচনার মাধ‌্যমে মেটানোর চেষ্টা করেছি। মধ‌্যস্থতার মাধ‌্যমেও এটা মেটানোর চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু, তাতে কাজের কাজ কিছু হয়নি। ফলে সেই আদালতের রায়ের উপরেই আমাদের নির্ভর করতে হয়েছে। যদিও সংঘ চেয়েছিল আলোচনার মাধ‌্যমে এই বিরোধ মিটিয়ে ফেলতে। কিন্তু, বাস্তবে তা হয়নি।’

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার জিয়াগঞ্জে একই পরিবারের তিনজনকে খুনের ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন তিনি। বলেন, ‘আমরা আগেই বলেছি, পশ্চিমবঙ্গে হিন্দুদের মুছে ফেলার একটা সুপরিকল্পিত চক্রান্ত চলছে। কিন্ত, এ ব‌্যাপারে পশ্চিমবঙ্গে সরকারের নীরবতা দেখে আমার অবাক লাগছে। অতীতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির যে নজির ও ইতিহাস বাংলার ছিল। এখন তা আর নেই।’

[আরও পড়ুন:হরিয়ানায় ভোটের প্রচারে গিয়ে চার-ছয় হাঁকাচ্ছেন রাহুল গান্ধী! ভাইরাল ভিডিও]

কথা প্রসঙ্গে এনআরসি নিয়েও মুখ খোলেন তিনি। দেশের নাগরিকদের সুরক্ষার স্বার্থে ও অনুপ্রবেশ রুখতে এনআরসি কার্যকর করা জরুরি বলেও উল্লেখ করেন। তাঁর কথায়, সব রাজ্যেই এনআরসি কার্যকর করা উচিত। আরএসএসও এটাই চায়। ভারতে পাকিস্তানি এবং বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের কোনও জায়গা নেই।

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের প্রসঙ্গে ভাইয়াজির মত, কাশ্মীরের ভূমিপুত্ররা ও শরণার্থী হিন্দুরা যেন তাঁদের পুরনো ঘরবাড়িতে ফিরতে পারেন এবং নিরাপদে থাকতে পারেন। এটা কেন্দ্রীয় সরকারকেই করতে হবে। ৩৭০ ধারা তুলে দিয়ে কাশ্মীরকে অভিশাপ থেকে মুক্তি দিয়েছে সরকার। তাই স্বর্গও তাদেরই বানাতে হবে।’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং