২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সম্প্রতি ২ হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে কাশ্মীর পুলিশ। কিন্তু তা সত্ত্বেও দীপাবলির আগে স্বস্তির হাওয়া বইছে না ভূস্বর্গে। সম্প্রতি গোয়েন্দাদের কাছে খবর এসেছে, জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে জম্মু-শ্রীনগর হাইওয়েতে। সেই কারণে হাইওয়ে ও তার আশপাশের অঞ্চল নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, সন্ত্রাস ছড়ানোর জন্য জঙ্গিরা নতুন পন্থা নিয়েছে। সেনা ছাউনির উপর আক্রমণ চালানোর পাশাপাশি হাইওয়েগুলোকে টার্গেট করেছে তারা। কারণ নিত্য এইসব রাস্তা দিয়ে বহু সরকারি আমলাদের গাড়ি যাতায়াত করে। এছাড়া সাধারণ মানুষও যাতায়াতের জন্য হাইওয়ে বেছে নেয়। তাই দীপাবলির আগে হাইওয়েকেই টার্গেট করেছে জঙ্গিরা। সূত্রের খবর, হামলার জন্য গাড়ি বোমা ও আইইডি মজুত করা হয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরের একাধিক এলাকায়। পুলওয়ামার মতো হামলা যাতে ফের করা যায়, তার জন্য চেষ্টার কোনও কসুর করছে না জঙ্গিরা।

[ আরও পড়ুন: সন্তানকে কবর দিতে গিয়ে মাটির নীচ থেকে জীবন্ত শিশুকন্যা উদ্ধার, তাজ্জব ব্যবসায়ী ]

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, এই পরিকল্পনা সম্পূর্ণভাবে লস্কর-ই-তইবার মস্তিষ্কপ্রসূত। একাধিক জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে মিলে হামলার ছক কষছে তারা। এও জানা গিয়েছে, সম্প্রতি লস্কর-ই-তইবা, হিজবুল মুজাহিদিন ও জইশ-ই-মহম্মদের মধ্যে এনিয়ে আলোচনা হয়। জম্মু-শ্রীনগর হাইওয়ে ছাড়া দেশের বেশ কয়েকটি জায়গায় হামলার ছক কষছে তারা। এছাড়া কয়েকজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বও রয়েছে তাদের হিটলিস্টে। সেইসব রাজনীতিবিদদের হত্যার ষড়যন্ত্রও করছে তারা।

এদিকে সোমবার সোপিয়ানে এক ট্রাক চালককে গুলি করে মারে জঙ্গিরা। নিহত ট্রাক চালকের নাম শরিফ খান। জঙ্গিদের হাত থেকে ওই ট্রাক চালককে বাঁচাতে গিয়ে মার খান স্থানীয় এক বাগান মালিক। এরপর আজ, মঙ্গলবার সকালে নিয়ন্ত্রণ রেখা টপকে গুলি চালায় পাকিস্তান। জবাব দেয় ভারতীয় সেনা। সাহাপুর, কেরনি ও মালটি সেক্টরে চলে গুলির লড়াই। যদিও এখনও কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। পুঞ্চ জেলায় পাকিস্তান ও ভারতীয় সেনার মধ্যে গুলি বিনিময় এখনও চলছে।

[ আরও পড়ুন: সোনিয়া গান্ধীকে ‘মৃত ইঁদুর’ বলে ফের বিতর্কে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং