BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পোষ্য সারমেয়দের ভক্ষণের বদলা, বিষ দিয়ে দুই চিতাবাঘকে হত্যা করল গ্রামবাসীরা!

Published by: Sulaya Singha |    Posted: April 19, 2020 12:06 pm|    Updated: April 19, 2020 12:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রক্তের বদলা রক্তে। ওরা মেরেছে, তাই প্রতিশোধ নিতে আমাদেরও মারতে হবে। গ্রামবাসীদের ঠিক এমনই মনোভাবের শিকার হল দুটি চিতাবাঘ। খিদের বশে স্থানীয়দের কয়েকটি পোষ্য সারমেয় মেরে ফেলায় তাদের রোষানলে পড়তে হল চিতাদের। ফলস্বরূপ, খাওয়া হজম হওয়ার আগেই প্রাণ গেল তাদেরও।

ঘটনা মহারাষ্ট্রের নান্দেদ জেলার কিনওয়াত তহশিল গ্রামের। ঔরঙ্গাবাদের বনাঞ্চলের প্রধান রক্ষক পিকে মহাজন জানান, তাল্লারি-জলকওয়াড়ি জঙ্গলের কাছ থেকে দুই চিতাবাঘের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। একটির সন্ধান মেলে গত বুধবার। আর অন্যটিকে খুঁজে পাওয়া যায় শনিবার। একটি চিতা পুরুষ ও অন্যটি ছিল স্ত্রী। দুইয়েরই বয়স দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে।

[আরও পড়ুন: ‘কেন্দ্রের সাথে কথা বলুন’, পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর দাবিতে মমতাকে চিঠি অধীরের]

প্রামথিকভাবে জানা গিয়েছে বিষক্রিয়াতেই মৃত্যু হয়েছে তাদের। মহাজন বলেন, “গ্রামবাসীদের দাবি, এলাকার কয়েকটি পোষ্য সারমেয়কে মেরে ফেলে ওই দুটি চিতা। সেই জন্য বিষ দিয়ে তাদের খুন করে সেখানকার বাসিন্দারা।” স্থানীয় বনদপ্তরের কর্তাদেরও অভিযোগ, বিষ খাইয়েই দুই চিতাবাঘকে হত্যা করেছে গ্রামবাসীরা। যদিও এখনও পর্যন্ত গোটা ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

মহারাষ্ট্রের বনোন্নয়ন কর্পোরেশনের ডিভিশনাল ম্যানেজার এসএইচ ভ্যাজ জানান, গোটা ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কে বা কারা এমন কাণ্ড ঘটাল, তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। কিন্তু এই মর্মান্তিক ঘটনা কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না পরিবেশবিদরা। খবর সামনে আসতেই তীব্র নিন্দা করেছেন অনেকেই। তেমনই এক পরিবেশপ্রেমী কিশোর পাঠক ক্ষোভ উগরে দিয়ে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির দাবি তোলেন। তিনি বলনে, “কাউকে রেয়াৎ করা উচিত নয়। বিশেষ করে যারা ওই দুই চিতাবাঘকে হত্যা করল। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের জন্য এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার।”

[আরও পড়ুন: গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন, চিন থেকে আমদানি করা PPE ব্যবহার করছে না অসম]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement