BREAKING NEWS

১৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৯ মে ২০২০ 

Advertisement

‘আমরাও শান্তি চাই, তবে আদালত হিংসা বন্ধ করতে পারে না’, মন্তব্য বিচারপতি বোবদের

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 2, 2020 3:33 pm|    Updated: March 2, 2020 3:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লি হিংসা এবং বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা না করায় আদালতে ফের ভর্ৎসিত দিল্লি পুলিশ। হিংসায় যারা মদত দিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দিল্লি পুলিশকে ৪ সপ্তাহ সময় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে দিল্লি হিংসা মামলার দ্রুত শুনানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত।

বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের না করার জন্য দিল্লি পুলিশকে একযোগে ভর্ৎসনা করেছিল সুপ্রিম কোর্ট ও দিল্লি হাই কোর্ট। চলতি সপ্তাহের বুধবার সেই মামলার শুনানি। দিল্লির বিধানসভা নির্বাচন ও ট্রাম্পের সফরের আগে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করেন কয়েকজন বিজেপি নেতা। এই ধরণের মন্তব্যের জেরেই দিল্লিতে হিংসা (Delhi violence)ছড়ায় বলে অভিযোগ বিরোধীদের। সেই হিংসার বলি হন ৪৬ জন।এরপরই নড়েচড়ে বসে দিল্লি পুলিশ। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের(CAA) সমর্থনকারী ও বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে পুড়ে ছাই হয় দিল্লির উত্তর-পূর্ব প্রান্ত।

এর আগে দিল্লির এক সমাজকর্মী হর্ষ মন্দার জানান, পাঁচ ভুক্তভোগীর পরিবার বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করে দিল্লি হাই কোর্টে একটি মামলা দায়ের করে। সেই মামলাটি হাই কোর্ট এক মাসের জন্য স্থগিত করে দিয়েছে। তবে আবেদনকারীরা সিট গঠন করে দিল্লি হিংসায় তদন্ত করা, দিল্লির উত্তেজনাপ্রবণ স্থানগুলিতে আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সেনার নজরদারি ও দিল্লি হাই কোর্টের বিচারপতি বদলের বিষয়েও প্রশ্ন তোলে।

এই মামলাটির শুনানি চলাকালীন কোলিন গঞ্জালভেজ দাবি করেন, “গতকালও দিল্লির নর্দমা পরিষ্কারের সময় ৪টি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দিল্লি হিংসা মামলার শুনানি দিনে দিনে এইভাবে পিছিয়ে যাচ্ছে।” সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি বোবদে বলেন, “হিংসায় দেশবাসীর মৃত্যুকে সমর্থন করে না হাই কোর্ট। আবার, এই ধরণের বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করে কেউ জনমানসে হিংসার জন্ম দিক সেটাও চায় না দেশের শীর্ষ আদালত। দেশের মানুষের আশা সুপ্রিম কোর্ট এই দাঙ্গাকে বন্ধ করতে পারে। কিন্তু না, সুপ্রিম কোর্ট কেবল মাত্র এই ধরণের ঘটনার পর তা আটকাতে পদক্ষেপ নিতে পারে। আমরা এই মামলার পুরোটা শুনে বুঝে তারপরই রায়দান করব। আদালত দেশে শান্তি বজায় রাখতে চায়, কিন্তু কোথায় আমাদেরও কাজের সীমাবদ্ধতা রয়েছে।”

[আরও পড়ুন:নির্ভয়াকাণ্ডে ৪ দোষীর ফাঁসি ফের স্থগিত, নির্দেশ দিল্লি হাই কোর্টের]

দুই দিন বাদে, বুধবার এই মামলার শুনানি হবে। এই হিংসায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের জন্য ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে আদালত। দিল্লির হিংসায় যাদের পুলিশ আটক করেছে পিটিশনে সেই তথ্যের উল্লেখ করা হয়েছে। পাশাপাশি হিংসা কবলিত এলাকাগুলির থেকে দাঙ্গার সিসিটিভি ফুটেজ জোগাড় করা হয়েছে। হিংসার জেরে যারা বলি হয়েছেন তাদের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট দ্রুত তাদের পরিজনেদের হাতে তুলে দেওয়ারও আরজি পিটিশনে জানানো হয়।

[আরও পড়ুন:‘নির্ভয়ার ধর্ষকদের অঙ্গদানের নির্দেশ দেওয়া হোক’, আরজি প্রাক্তন বিচারপতির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement