২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

শিকেয় নারী নিরাপত্তা! মধ্যপ্রদেশে বাড়িতে ঢুকে বিধবাকে লাগাতার ধর্ষণ দুষ্কৃতীদের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 6, 2020 7:50 pm|    Updated: October 6, 2020 7:58 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে দেশের বেশিরভাগ মানুষই ঘরবন্দি অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন। আর সেই সুযোগেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিকৃত কামনার পরিচয় দিচ্ছে কিছু মানুষরূপী পশু! একরত্তি শিশু থেকে আশি বছরের বৃদ্ধা, কেউই বাদ যাচ্ছে না ধর্ষকদের কবল থেকে। গত কয়েকদিনে তার প্রমাণও পাওয়া যাচ্ছে চারিদিকে। উত্তরপ্রদেশের হাথরাসের ঘটনা নিয়ে গোটা দেশ যখন উত্তাল হয়ে পড়েছে ঠিক তখনই মধ্যপ্রদেশে এক বিধবাকে বাড়িতে ঢুকে লাগাতার ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল ৬ জনের বিরুদ্ধে। পাশবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের রেওয়া (Rewa) জেলায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে সংসার চালানোর জন্য ৩৬ বছরের ওই মহিলা বিভিন্ন বাড়িতে রান্নার কাজ করেন। আর তাঁর ছেলে করেন শ্রমিকের কাজ। গত ৩০ তারিখ তাঁর ছেলে কাজ থেকে ফিরে দেখেন মা বাড়িতে নেই। এরপর চারিদিকে খোঁজাখুঁজি করেও মায়ের কোনও খোঁজ পাননি তিনি। পরেরদিন স্থানীয় সঞ্জয় গান্ধী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল থেকে ফোন করে জানানো হয় যে তাঁর মাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ভরতি রয়েছেন। এরপর স্থানীয় মহিলা থানায় গিয়ে এই বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতার ছেলে। তার ভিত্তিতে তদন্তে নেমে এখনও পর্যন্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের জেরা করে আরও দুই অভিযুক্তের সন্ধানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ‘করদাতাদের টাকায় কেনা প্রধানমন্ত্রীর ৮ হাজার কোটির বিমান বিলাসিতা নয়?’ পালটা খোঁচা রাহুলের ]

এপ্রসঙ্গে স্থানীয় মহিলা থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক আরাধনা সিং পারিহার জানান, ওই মহিলার ছেলে বাইরে কাজে গিয়েছিল। সেই সুযোগে বাড়িতে ঢুকে ওই মহিলাকে লাগাতার গণধর্ষণ (gang-rape) করে ৬ অভিযুক্ত। এর জেরে ওই মহিলা অচৈতন্য হয়ে পড়লে তাঁকে সঞ্জয় গান্ধী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বাইরে ফেলে দিয়ে যায়। ওই মহিলার শরীরে ও মাথার একাধিক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

[আরও পড়ুন: কয়লা কেলেঙ্কারিতে দোষী সাব্যস্ত বাজপেয়ী মন্ত্রিসভার প্রাক্তন সদস্য দিলীপ রায়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement