BREAKING NEWS

১৭ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  সোমবার ১ জুন ২০২০ 

Advertisement

যোগীকে নিয়ে ফেসবুকে ‘আপত্তিকর’ পোস্ট, মামলা দায়ের সাংবাদিকের বিরুদ্ধে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 8, 2019 8:13 pm|    Updated: June 8, 2019 8:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কিছুদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি ব্যবহার করে কুরুচিকর মিম শেয়ার করে প্রশাসনের রোষের মুখে পড়েছিলেন বিজেপির যুব মোর্চার নেত্রী প্রিয়াঙ্কা শর্মা। রীতিমতো গ্রেপ্তার হয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করতে হয়েছিল প্রিয়াঙ্কাকে। পরে অবশ্য, সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপে জামিনে মুক্তি পান তিনি। এবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হল উত্তরপ্রদেশে। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ফেসবুকে পোস্ট করে প্রশাসনের রোষের মুখে পড়লেন এক সাংবাদিক। রীতিমতো মামলা দায়ের করা হল তাঁর বিরুদ্ধে।

[আরও পড়ুন: বিজেপির দখলে দার্জিলিং পুরসভা, পদ্মশিবিরে যোগ দিলেন ১৭ জন কাউন্সিলর]

স্থানীয় সূত্রের খবর, প্রশান্ত কানোজিয়া নামের এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে লখনউয়ের হজরতগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলাটি আবার দায়ের হয়েছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশেরই এক কনস্টেবলের অভিযোগের ভিত্তিতে। ওই কনস্টেবলের দাবি, প্রশান্ত ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছেন যা আপত্তিকর। ওই মামলার ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রের দাবি। যদিও, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের তরফে এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করা হয়নি। প্রশান্তের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে জানা গিয়েছে, কদিন আগে ওই যুবক ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যাতে দেখা যাচ্ছে, এক মহিলা উত্তরপ্রদেশের সচিবালয়ের সামনে দাঁড়িয়ে বারবার মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে বিয়ের প্রস্তাব দিচ্ছে। এবং মুখ্যমন্ত্রীর তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক আছে বলেও দাবি করছেন। ভিডিওটি পোস্ট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভাইরাল হয়ে যায়। এরপরই তড়িঘড়ি পদক্ষেপ করে যোগী রাজ্যের পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ২০৪৭ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবে বিজেপি, দাবি সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের]

উল্লেখ্য, এ রাজ্যে প্রিয়াঙ্কা শর্মার মামলার ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের ভূমিকার বেশ সমালোচনা করেছিল বিজেপি। তাদের দাবি ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাসনকালে রাজ্যে অভিব্যক্তির স্বাধীনতা নেই। এই নিয়ে বেশ জলঘোলা হয়েছিল জাতীয় রাজনীতিতেও। কিন্তু, এবার এক বিজেপি শাসিত রাজ্যে সেই একই ঘটনা ঘটল। যদিও, এ নিয়ে এখনও উত্তরপ্রদেশের প্রশাসন বা বিজেপি কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement