Advertisement
Advertisement
Mamata Banerjee

বেহালার উন্নয়নে বিশেষ অবদান, ভোট প্রচারে নাম না করে শোভনকে ‘ধন্যবাদ’ মমতার

শেষ মুহূর্তের নির্বাচনী প্রচারে ব্যস্ত তৃণমূল। মঙ্গলবার সন্ধেবেলা কলকাতা দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী মালা রায়ের সমর্থনে বেহালা চৌরাস্তায় জনসভা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগে তিনি এন্টালি থেকে বালিগঞ্জ ফাঁড়ি পর্যন্ত পদযাত্রা করেন।

2024 Lok Sabha Election: Mamata Banerjee thanks Sovan Chatterjee without taking his name
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:May 28, 2024 7:47 pm
  • Updated:May 28, 2024 7:47 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চব্বিশের লোকসভা ভোট (2024 Lok Sabha Election)শেষ হতে আর মাত্র কয়েকদিন। আগামী ১ জুন, শনিবার সপ্তম তথা শেষদফার ভোট। ওইদিন কলকাতা দক্ষিণ-সহ রাজ্যের মোট ৯ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ। তার আগে শেষদফার প্রচারে ঝাঁপিয়েছে সব রাজনৈতিক দলই। মঙ্গলবার শহরে ছিল হাই ভোল্টেজ প্রচার। একদিকে উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতায় জোড়া রোড শো করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সন্ধেবেলা বেহালায় জনসভা। অন্যদিকে, একই সময়ে উত্তর কলকাতায় মোদির রোড শো। তার আগে দুই জেলায় দুটি জনসভা। সবমিলিয়ে মোদি-মমতার নির্বাচনী প্রচারে আজ নজর রেখেছিল সব মহল।

মঙ্গলবার সন্ধেবেলা কলকাতা দক্ষিণের (Kolkata Dakshin) তৃণমূল প্রার্থী মালা রায়ের সমর্থনে বেহালা চৌরাস্তায় জনসভা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগে তিনি এন্টালি থেকে বালিগঞ্জ ফাঁড়ি পর্যন্ত পদযাত্রা করেন। বেহালার সভা থেকে উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরার পাশাপাশি নাম না করে প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানান তৃণমূল নেত্রী। জোকা-তারাতলা মেট্রোরুট নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘আরেক জনকে ধন্যবাদ দেব। হতে পারে তিনি আজ সরাসরি তৃণমূল (TMC) করেন না। সেটা অন্য বিষয়। তখন তিনি মেয়র ছিলেন। কোন কোন স্পটে স্টেশন হবে, জমি মিলছিল না। নিজেদের পকেটের টাকা দিয়ে জমি কিনে স্টেশন তৈরির ব্যবস্থা করা হয়েছিল।’’

Advertisement

[আরও পড়ুন: রাসেলকে ‘লুট পুট গ্যায়া’ শেখালেন অনন্যা! ভাইরাল ভিডিও]

উল্লেখ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের (Sovan Chatterjee)সম্পর্কের কথা সর্বজনবিদিত। প্রিয় ‘কানন’কে যেমন স্নেহ করতেন দলনেত্রী, তেমনই ভরসা করতেন। দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হলেও একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধা-স্নেহের সম্পর্কে খুব একটা চিড় ধরেনি। এখনও প্রতি বছর ভাইফোঁটায় কালীঘাটে ‘দিদি’র বাড়িতে যান শোভন। যদিও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া প্রাক্তন মেয়র এখন সে অর্থে রাজনীতি থেকে অনেকটাই দূরে। গেরুয়া শিবিরের সঙ্গেও সম্পর্ক নেই। একটা সময়ে নির্বাচনী রাজনীতিতেও খুব প্রাসঙ্গিক ছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। বেহালা (Behala) বলতে তিনিই ছিলেন সব। মঙ্গলবার সেই বেহালায় নির্বাচনী প্রচার করতে গিয়ে এলাকার উন্নয়নে তাই নাম না করেও একসময়ের স্নেহভাজন শোভনের কথা স্মরণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

Advertisement

[আরও পড়ুন: রাখি সাওয়ান্তের HIV! খবর পেয়ে হাসপাতালেই ভেঙে পড়লেন অভিনেত্রী]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ