BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

৪ বছর ধরে ধর্ষণ, নগ্ন ছবি ভাইরালের হুমকি, বন্ধুর বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ তরুণী

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 21, 2020 10:09 pm|    Updated: August 21, 2020 10:11 pm

An Images

অর্ণব আইচ: ছোটবেলার বান্ধবীকে মাদক খাইয়ে ধর্ষণ (Rape)। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করার হুমকি দিয়ে ব্ল্যাকমেল ও টানা চার বছর ধরে বিবাহিতা বান্ধবীকে সহবাসে বাধ্য করা। ওই যুবতীর কাছ থেকে ২ লাখ ১০ হাজার টাকা আদায় করে শহরের এক যুবক। চার বছর পর উত্তর কলকাতা শ্যামপুকুর থানায় ধর্ষণ ও ব্ল্যাকমেলের অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবতী।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত যুবক উত্তর কলকাতার (Kolkata) চন্ডী ঘোষ রোডের বাসিন্দা। তাঁর সঙ্গে ওই যুবতীর ছোটবেলা থেকেই বন্ধুত্ব। কয়েক বছর আগে যুবতীর বিয়ে হয়। চার বছর আগে ২০১৬ সালের জুলাই মাসে গল্প করার জন্য ছোটবেলার বান্ধবীকে ডাকে অভিযুক্ত। যুবতীর কোনও সন্দেহ হয়নি তাঁর বন্ধুর উপর। কিন্তু তাঁকে ঠান্ডা পানীয়র সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে অভিযুক্ত। তাকে ধর্ষণ করে সে। সেই ছবি তুলে রাখে নিজের মোবাইলে। এরপর থেকে শুরু হয় ব্ল্যাকমেল। ওই অশ্লীল ছবি শ্বশুরবাড়িতে পাঠানো ও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে বারবার যুবতীকে ধর্ষণ করা হয়। এমনকী, যুবতীর অভিযোগ, তাঁকে অস্বাভাবিক যৌনকর্ম করতে বাধ্য করা হয়। এরপর বান্ধবীকে ব্ল্যাকমেল করে ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা নেয় ওই যুবক।

[আরও পড়ুন: করোনা আবহে অভিনব উদ্যোগ, রাজ্যে চালু হচ্ছে প্রথম অনলাইন লোক আদালত]

কিন্তু চার বছর ধরে লোকলজ্জার কারণে যুবতী কাউকে কিছু বলতে পারেননি। সম্প্রতি তাঁর মানসিক অবস্থা দেখে স্বামীর সন্দেহ হয়। স্ত্রীর মোবাইলে আসা কিছু মেসেজ ঘেঁটে দেখার পর তাঁর সন্দেহ বাড়ে। তিনি স্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করার পর যুবতী কান্নায় ভেঙে পড়েন। স্বামীকে পুরো বিষয়টি খুলে বলেন। এই ক্ষেত্রে স্বামী তাঁর পাশে দাঁড়ান। বন্ধুর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন যুবতী। পুলিশ তদন্ত করছে। অভিযুক্তর বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এদিকে, কলকাতার এক মেডিক্যাল কলেজে পাঠরত এক ছাত্রীর অভিযোগ, তাঁর ফেসবুক প্রোফাইল থেকে ছবি নিয়ে তাঁর নামে একটি ভুয়ো ফেসবুক প্রোফাইল খুলেছে কোনও অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি। সে ওই ভুয়ো প্রোফাইলে বিভিন্ন মন্তব্য করেছে। ফলে তিনি সমস্যায় পড়েছেন। এই বিষয়ে ওই ছাত্রী লালবাজারের সাইবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

[আরও পড়ুন: মেডিক্যালে ভরতি হতে গিয়ে হয়রানি, ঘণ্টাখানেক অ্যাম্বুল্যান্সেই পড়ে রইলেন করোনা রোগী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement