BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্বামীর আয় জানার অধিকার নেই স্ত্রীর, কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনে খারিজ মহিলার RTI আবেদন

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 22, 2020 8:58 am|    Updated: August 22, 2020 9:15 am

An Images

শুভঙ্কর বসু: কথায় আছে, নারীর বয়স আর পুরুষের আয় (Income)! এই দুই নাকি চিরকালের লুকোছাপা। কিন্তু মাস গেলে স্বামী কত আয় করে স্ত্রীর কি তা জানার অধিকার আছে? অন্তত আইনের চোখে? এক কথায় উত্তর ‘না’। আইনত স্ত্রীর তা জানার অধিকার নেই। কেন? স্ত্রী তো অর্ধাঙ্গিনী। তাহলে স্বামীর আয় জানতে তাঁর বাধা কোথায়? বাধা রয়েছে। কারণ স্বামীর আয় যাচাই করতে তাঁর আয়কর সংক্রান্ত নথি চেয়ে ‘তথ্য জানার অধিকার আইনে’ আবেদন জানিয়েছিলেন এক মহিলা। সেই সূত্রেই সম্প্রতি এমন তত্ত্ব সামনে এসেছে।

কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশন জানিয়ে দিয়েছে, “রাষ্ট্রের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকেই একজন ব্যক্তি আয়কর দিয়ে থাকেন। কোনও বৃহত্তর জনস্বার্থের প্রশ্ন জড়িত না থাকলে তৃতীয় কোনও ব্যক্তিকে সেই তথ্য প্রকাশ করা যায় না।” অতএব স্বামী যদি তা না জানান তাহলে কোনওভাবেই স্ত্রী তা জানতে পারেন না। কিন্তু হঠাৎ কেন স্বামীর আয়কর সংক্রান্ত নথির প্রয়োজন পড়ল ওই মহিলার? আসলে স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর তিনি বিচ্ছেদের মামলা রুজু করেছিলেন। সেখানে খোরপোশের প্রশ্ন উঠতেই স্বামীর প্রকৃত আয় কত তার তথ্য তালাশ শুরু করেন। সেই সূত্রেই ‘তথ্য জানার অধিকার আইনে’ আয়কর বিভাগের কাছে স্বামীর আয়কর সংক্রান্ত নথি চেয়ে আবেদন জানান। কিন্তু আয়কর বিভাগ সেই নথি তাঁকে দিতে অস্বীকার করে জানিয়ে দেয়, তথ্য জানার অধিকার আইনের (৮/১/জে) ধারা অনুযায়ী কোনও ব্যক্তির আয়কর সংক্রান্ত তথ্য ‘এক্সেমপ্টেড ইনফরমেশন’ এর পর্যায়ে পড়ে। দ্বিতীয় কোন ব্যক্তিকে সেই তথ্য দেওয়া যায় না।
এরপর সরাসরি কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছিলেন ওই মহিলা।

[আরও পড়ুন: বেসরকারি হাসপাতালে লাগামছাড়া কোভিড চিকিৎসার খরচ, রাশ টানতে বৈঠকে স্বাস্থ্য কমিশন]

তার আবেদনের প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনার নীরজ কুমার গুপ্তা বলেন, “তথ্য জানার অধিকার আইনে কোনও ব্যক্তির আয়কর সংক্রান্ত নথির তথ্য তখনই অন্য কেউ পেতে পারেন যখন হাতে বৃহত্তর জনস্বার্থের প্রশ্ন জড়িত থাকে। কারণ কর দেওয়া রাষ্ট্রের প্রতি দায়বদ্ধতা। ফলে সেই সংক্রান্ত তথ্য রাষ্ট্র ও সেই ব্যক্তির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকা বাঞ্ছনীয়। এক্ষেত্রে যেহেতু কোন বৃহত্তর জনস্বার্থ জড়িত নেই তাই স্ত্রী হলেও তিনি স্বামীর আয়কর সংক্রান্ত তথ্য পাওয়ার অধিকারী হতে পারে না।” এরপরই আবেদনটি খারিজ হয়ে যায়। এবং এর ফলে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে স্বামী হোক বা স্ত্রী কিংবা কোনো নিকটাত্মীয় হলেও জনস্বার্থের প্রশ্ন জড়িত না থাকলে একজন ব্যক্তির আয় সংক্রান্ত তথ্য সেই ব্যক্তি ব্যতীত অন্য কারও জানার অধিকার নেই।

[আরও পড়ুন: ৪ বছর ধরে ধর্ষণ, নগ্ন ছবি ভাইরালের হুমকি, বন্ধুর বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ তরুণী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement