২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘ডেমোক্রেসির বদলে রাজ্যে মমতাক্রেসি চলছ’, মণীশ খুন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র আক্রমণ অধীরের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 6, 2020 11:02 am|    Updated: October 8, 2020 9:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালে ডেস্ক: বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লাকে (Manish Shukla murder) নৃশংস হত্যার ঘটনা ঘিরে এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রতি আক্রমণের পথে হাঁটলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরি (Adhir Ranjan Chowdhury)। একের পর এক টুইটে তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে আক্রমণ শানিয়েছেন। কংগ্রেস সাংসদের মতে, এই মুহূর্তে রাজ্যে যা আছে, তা ‘ডেমোক্রেসি’ নয়, ‘মমতাক্রেসি’। এছাড়া ২০১১ সালে রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিখ্যাত স্লোগান – ‘বদলা নয়, বদল চাই’-এর কথাও মনে করিয়ে দেন অধীরবাবু।

মণীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ড এই মুহূর্তে রাজ্য রাজনীতির আলোচনার কেন্দ্রে। বঙ্গ বিজেপি থেকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব – সকলেই এ নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। রাজ্য পুলিশে আস্থা নেই বলে জানিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবিতে প্রথম থেকেই সরব কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অর্জুন সিং, মুকুল রায়রা। রাজ্যের তরফে খুনের কিনারা করার ভার দেওয়া হয়েছে সিআইডিকে। তদন্তে নেমে ২ জনকে গ্রেপ্তার করে গতি বাড়িয়েছেন আধিকারিকরা।

[আরও পড়ুুন: মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশকে বুড়ো আঙুল, নার্সিংহোমের বিলের বোঝায় নাজেহাল করোনা রোগীর পরিবার]

এই অবস্থায় মণীশের খুন নিয়ে মমতাকে (Mamata Banerjee) নিশানা করে রাজনীতির পারদ আরও খানিকটা চড়িয়ে দিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি। তিনিও বিজেপি নেতাদের সুরেই বললেন, বাংলায় গণতন্ত্র নেই। টুইটারে তিনি মমতার উদ্দেশে লেখেন, ”থানার সামনে বিজেপি নেতার খুনের ঘটনায় অনেক প্রশ্ন উঠছে এবং উঠবে। দিদি, আপনি চাইলে খুনি ধরা পড়বে। আপনি না চাইলে অ্যারেস্ট হয়ত কেউ হবে, কিন্তু প্রকৃত খুনি অ্যারেস্ট হবে না।”

[আরও পড়ুুন: ১৫ ডিসেম্বরের আগে কলকাতা পুরভোট নয়, প্রশাসক বোর্ডের মেয়াদ বাড়াল সুপ্রিম কোর্ট]

ধারাবাহিক টুইটে তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে এও মনে করিয়ে দিয়েছেন যে বিরোধী মানে প্রতিপক্ষ, শত্রু নয়। তাই বাংলায় যেন রাজনৈতিক খুন বন্ধ হয়। মমতার ‘বদলা নয়, বদল চাই’ স্লোগানকে সামনে রেখেই আক্রমণের ধার বাড়িয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। লিখেছেন, ”বদলা নয়, বদল চাই – বলেছিলেন, ভুলে গেলেন দিদিভাই??” অধীর চৌধুরির এহেন মন্তব্য় ঘিরে রাজনৈতিক উত্তাপ আরও বাড়ল বলেই ধারণা ওয়াকিবহাল মহলের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement