২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

আমফান বিধ্বস্তদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা দেওয়ার দাবি, প্রতিনিধি দলের দ্বারস্থ হচ্ছেন দিলীপ

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 6, 2020 9:59 am|    Updated: June 6, 2020 10:30 am

An Images

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: আমফানের করাল থাবায় বিপর্যস্ত বাংলা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে কোমর বেঁধে নেমেছে রাজ্য সরকার। ক্ষতিগ্রস্তদের করা হচ্ছে আর্থিক সাহায্য। তবে তা সত্ত্বেও ত্রাণ  নিয়ে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি লেগেই রয়েছে। বিজেপির দাবি, ঠিকমতো ত্রাণ পাচ্ছেন না বিপর্যস্তরা। এবার সরাসরি সেই অভিযোগ আমফানের ক্ষত দেখতে আসা কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যদের জানাবেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শনিবার দুপুরে কলকাতার এক পাঁচতারা হোটেলে তাঁদের সঙ্গে বিজেপি প্রতিনিধিদের দেখা করার কথা। তারপর নবান্নে যাবেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিরা।

গত ২০ মে বাংলায় আছড়ে পড়ে প্রবল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। ১৩৩ কিলোমিটার বেগে বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে ক্ষতিগ্রস্ত হয় কলকাতা-সহ বাংলার একাধিক জেলা। কোথাও ভেঙেছে কাঁচা বাড়ি আবার কোথাও উপড়ে গিয়েছে গাছ। ভেঙেছে বিদ্যুতের খুঁটি। তার ফলে বেশ কয়েকদিন ধরে ব্যাহত হয় বিদ্যুৎ ও জল পরিষেবা। সমস্যায় পড়েন আমজনতা। আমফান পরবর্তী সময়ে বাংলায় এসে আকাশপথে ধ্বংসের ছবি খতিয়ে দেখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। তৎক্ষণাৎ ১ হাজার কোটি টাকা আর্থিক সাহায্যও করেন।

[আরও পড়ুন: KYC আপডেট করার নামে জালিয়াতি, কলকাতায় ফের ‘অপারেশন’ জামতাড়া গ্যাংয়ের!]

কথা দিয়েছিলেন ক্ষয়ক্ষতি খতিয়ে দেখতে বাংলায় আসবেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। সেই অনুযায়ী গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজ্যে আসেন সাত সদস্যের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। শুক্রবার দু’টি দলে ভাগ হয়ে উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনার একাধিক এলাকা পরিদর্শন করেন তাঁরা। শনিবারও দক্ষিণ ২৪ পরগনার কিছু অংশ পরিদর্শন করে প্রতিনিধি দল। ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে কথাও বলেন। ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্টও তৈরি হয়ে গিয়েছে। শনিবার মুখ্যসচিব রাজীব সিনহার সঙ্গে নবান্নে বৈঠক করবেন তাঁরা। এরপর ওই প্রতিনিধি দল ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্ট কেন্দ্রকে জমা দেবে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ খতিয়ে দেখে আবারও মিলতে পারে আর্থিক সাহায্য। 

এই পরিস্থিতিতে নবান্নে আসার আগে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেখা করবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এছাড়াও থাকবেন লকেট চট্টোপাধ্যায়, প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় ও জয়প্রকাশ মজুমদার। ত্রাণ ঠিকমতো ক্ষতিগ্রস্তদের কাছে পৌঁছনো হচ্ছে না বলে কেন্দ্রীয় দলের কাছে অভিযোগ জানাবেন তাঁরা। যাতে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্তদের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দেওয়া যায়, সেই ব্যবস্থা করার আবেদনও জানাবেন বিজেপি নেতারা। 

[আরও পড়ুন: করোনায় মৃত ব্যক্তির দেহ সৎকারের আগের নিয়মে বড়সড় বদল আনল রাজ্য সরকার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement