১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাই কোর্টে বড় ধাক্কার মুখে কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল রাজীব কুমার। তাঁর উপর থেকে আইনি রক্ষাকবচ তুলে নিল আদালত। ফলে এবার যে কোনও মুহূ্র্তে রাজীব কুমারকে গ্রেপ্তারিতে আর কোনও বাধা নেই সিবিআইয়ের। শুক্রবার বিচারপতি মধুমতী মিত্রের এজলাসে মামলা উঠলে, পর্যবেক্ষণে তিনি জানান, রক্ষাকবচ দিলে তদন্তে হস্তক্ষেপ করা হয়, যা আদালত বহির্ভূত কাজ। এরপর তিনি জানান, যে কোনও সময় রাজীব কুমারকে গ্রেপ্তার করতে পারবে সিবিআই। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার তলব পেয়ে নিয়মিত হাজিরা না দিলে, গ্রেপ্তারির সম্ভাবনা বাড়বে।

[আরও পড়ুন: বাম ছাত্র-যুবদের নবান্ন অভিযানে ধুন্ধুমার, জলকামানের পালটা ইটবৃষ্টি]

দিন দুই আগেই রাজীব কুমার বনাম সিবিআই মামলার শুনানি শেষের পর কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি মধুমতী মিত্রর এজলাস রায়দানে স্থগিতাদেশ দিয়েছিল।আগামী সপ্তাহে মামলার রায় দেওয়ার সম্ভাবনা ছিল। তবে এমন হাইপ্রোফাইল মামলা নিয়ে বিলম্ব করতে চাননি বিচারপতি। শুক্রবারই তিনি রায় ঘোষণা করলেন, যা পুরোপুরি মামলাকারী রাজীব কুমারের বিপক্ষে গেল। যদিও গত মঙ্গলবার শেষে কলকাতা পুলিশের প্রাক্তন নগরপালকে কিছুটা স্বস্তি দিয়ে বিচারপতি জানিয়েছিলেন, যতদিন না রায় দেওয়া হচ্ছে, ততদিন অন্তর্বতী নির্দেশ বহাল থাকবে। 
গত মে মাসেই এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি শুরু হয় কলকাতা হাই কোর্টে। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তারিখ পিছিয়ে যায় বারবার। আগস্টের মাঝামাঝি সময় থেকে প্রতিদিন শুনানি শুরু হয় হাই কোর্টে। রাজীবের আইনজীবীর দীর্ঘ সওয়ালের পর পালটা সওয়াল করেন সিবিআইয়ের আইনজীবী। তারপরই দীর্ঘ শুনানি শেষ হয় মঙ্গলবার।

সারদা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়ে আগে বেশ কয়েকবার রাজীব কুমারকে তলব করেছিল সিবিআই। কিন্তু প্রত্যেকবারই কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকদের সামনে হাজিরা এড়িয়ে যান কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার। শেষপর্যন্ত এপ্রিলে যখন কলকাতায় রাজীব কুমারের বাড়িতে হানা দেন সিবিআই আধিকারিকরা, তখন তাঁর গ্রেপ্তারির জল্পনা তুঙ্গে ওঠে। সারদা মামলায় ‘গ্রেপ্তারি’ এড়াতে কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন রাজীব কুমার। তাঁর গ্রেপ্তারিতে স্থগিতাদেশ জারি করেছিলেন হাই কোর্টের বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকলে যে রাজীব কুমারকে সিবিআই দপ্তরে হাজিরা দিতে হবে, তা স্পষ্টই জানিয়ে দিয়েছিল আদালত। বস্তুত, আদালতের নির্দেশে সিবিআই দপ্তরের হাজিরাও দিয়েছেন কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল।

[আরও পড়ুন: ফের ব্যস্ত সময়ে মেট্রো বিভ্রাট, ময়দান স্টেশনে বন্ধ হল না কামরার দরজা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং