৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বউবাজারে মেট্রোর টানেল খোঁড়ার সময় বিপর্যয়ের জের। এনিয়ে কলকাতা পুরসভা দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে মেট্রোর কাজে স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাই কোর্ট। আগামী ৭ নভেম্বর পর্যন্ত টানেলের কোনও কাজ করা যাবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন হাই কোর্টের বিচারপতি। তবে এবিষয়ে রাজ্যের কী ভাবনা, তা নিয়ে রাজ্যকেও হলফনামা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: ফের ধাক্কা রাজীব কুমারের, আগাম জামিনের আবেদন ফেরাল বারাসত আদালত]

সপ্তাহ দুই আগে, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সুড়ঙ্গ খুঁড়তে গিয়ে বউবাজারে প্রায় তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়েছে বাড়ি। এক রবিবার দুপুরে দু,একটি বাড়ির একাংশ ধসে পড়ার পরই নড়েচড়ে বসে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। পরের দিনগুলোয় একের পর এক বাড়ি হুড়মুড়িয়ে ভাঙতে থাকায় নিজেদের দায় স্বীকার করে নেয় মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। রীতিমত বিপদ সংকুল স্থান হয়ে ওঠে বউবাজারের দুর্গা পিতুরী লেন, স্যাকরা পাড়া লেন, গৌর দে লেন। ভগ্ন বাড়ি থেকে নিরাপত্তার স্বার্থে স্থানীয় বাসিন্দাদের বের করে নিয়ে যাওয়া হয় হোটেলে। এমনকী বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে আবাসন খালি করে অন্যত্র চলে যেতে হয় রাজ্যের মন্ত্রী তাপস রায়কেও। ইঞ্জিনিয়াররা পরীক্ষানিরীক্ষা করে জানান, ভূগর্ভে জলের পরিমাণ বেশি থাকা এবং তার মধ্যেই টানেল বোরিং মেশিন দিয়ে কাজ করার ফলেই এমন বিপদ।যথাযথভাবে পরীক্ষানিরীক্ষা না করেই কাজ শুরু করা হয়েছে কেন, এই প্রশ্নও ওঠে নানা মহলে।

বিপর্যয় মোকাবিলায় নবান্নে তড়িঘড়ি মেট্রো কর্তাদের নিয়ে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি তাঁদের বাড়ি নতুন করে তৈরি করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। তবে আপৎকালীন পরিস্থিতিতে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে চাপ দেওয়া হয় সরকারের তরফে। সেইমতো ক্ষতিগ্রস্তদের হাতে চেক তুলে দিয়েছিলেন কেএমআরসিএল-এর আধিকারিকরা। সুড়ঙ্গের কাজ স্থগিত রাখতে চেয়ে কলকাতা পুরসভার তরফে কলকাতা হাই কোর্টে আবেদন করা হয়।মঙ্গলবার সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই মেট্রোর কাজে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ দিয়েছেন বিচারক।

[আরও পড়ুন: ব্যাংক জালিয়াতির নয়া কৌশল, অ্যাপ ‘এনি ডেস্ক’ ডাউনলোডেই কাজ হাসিল]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং