BREAKING NEWS

৯ মাঘ  ১৪২৮  রবিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

রাজ্যে করোনার বলি ৭ জন, নবান্ন থেকে বিবৃতি দিয়ে জানালেন চিকিৎসকরা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 2, 2020 4:36 pm|    Updated: April 2, 2020 5:18 pm

Coronavirus Outbreak: Seven persons died in West Bengal, doctors announce today

গৌতম ব্রহ্ম: নোভেল করোনা ভাইরাসে রাজ্যে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে নবান্ন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সাংবাদিকদের জানিয়ে দিলেন চিকিৎসকরা। নতুন করে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬ জনের শরীরে মিলেছে COVID-19’র  জীবাণু। যার জেরে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৩। সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৩ জন। নবান্ন থেকে আজ নতুন করে এসব তথ্যই মিলল। 

মঙ্গলবার সন্ধে থেকে বুধবার রাত পর্যন্ত চারজন করোনা আক্রান্তের  মৃত্যুর খবর মিলেছিল। হাওড়ার গোলাবাড়ির আইএলএস হাসপাতাল, এনআরএস হাসপাতাল, বেলঘরিয়ার এক নার্সিংহোম এবং বাইপাসের ধারে বেসরকারি হাসপাতালে তাঁদের মৃত্যু হয়। তবে তাঁরা যে করোনার বলি, সে বিষয়ে  নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছিল না। তবে আজ চিকিৎসকদের কথায় স্পষ্ট যে ওই চারজনের প্রাণ গিয়েছে নোভেল করোনা ভাইরাসের ছোবলে।  

[আরও পড়ুন: CBSE’র পথে হাঁটল রাজ্য, অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সবাইকে পাশ করানোর সিদ্ধান্ত পর্ষদের]

স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর,  ১৬ জনের প্রত্যেকের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছিল সোয়াব টেস্টের জন্য। সকলের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি থাকা কালিম্পংয়ের যে মহিলার মৃত্যু হয়েছিল শনিবার গভীর রাতে, তাঁর পরিবারের চারজনের COVID-19 পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। ওই মহিলার স্বামী, কন্যা, পুত্র ও পুত্রবধূ করোনা আক্রান্ত। তাঁরাও উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রয়েছেন। এছাড়া ওই মহিলার সংস্পর্শে আসা ১৪ জন নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে সোয়াব টেস্টের জন্য। রিপোর্টের অপেক্ষায় চিকিৎসকরা।

নাগেরবাজারের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন ২ জন। দু’জনেই পঞ্চাষোর্ধ্ব। এঁদের মধ্যে একজন উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহের বাসিন্দা এবং অপর এক মহিলার বাড়ি মধ্যমগ্রামে। বাইপাসের আরও এক বেসরকারি হাসপাতালের আইসোলেশেনে ভরতি রয়েছেন আরও ৫ জন। যাঁদের মধ্যে রয়েছেন আর্মহার্স্ট স্ট্রিটের দু’জন, সম্পর্কে যাঁরা শ্বশুর ও পুত্রবধূ। রয়েছেন তমলুকের এক ব্যক্তি। এছাড়া টালিগঞ্জের করুণাময়ীর এক ব্যাংক অফিসার, দক্ষিণ কলকাতার আরেক বাসিন্দা ভরতি বাইপাসের ওই বেসরকারি হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে। এঁদের বাদ দিয়ে আলিপুর সেনা হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত নিয়ে ভরতি চিকিৎসকের গাড়িচালককেও আইসোলেশনে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকরা।

[আরও পড়ুন: ‘যাঁরা আল্লাহর ভরসায় রয়েছেন, তাঁরাই আক্রান্ত’, ফের বেফাঁস দিলীপ]

এছাড়া সল্টলেক লাগোয়া বাইপাসের আরও এক বেসরকারি হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভরতি সল্টলেকের এক বাসিন্দা। মেদিনীপুরের দাসপুরে করোনা আক্রান্ত যুবকের সংস্পর্শে আসা এক ব্যক্তিকে ভরতি করা হয়েছে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ইতিমধ্যেই এই যুবকের বাবার শরীরে মিলেছে COVID-19’এর জীবাণু। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ১৬ জনের শরীরে করোনার জীবাণু মেলায় সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৩। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে