BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে পকেটে টান? বাড়ি বসে পেয়ে যান পিএফের টাকা

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 31, 2020 8:39 pm|    Updated: May 17, 2020 8:09 am

An Images

শুভঙ্কর বসু: লকডাউনের জেরে বন্ধ অফিস, ব্যবসা। কিন্তু তা বলে তো থেমে নেই গেরস্থের হেঁশেল। আর তাতেই পকেটে টান মধ্যবিত্তের। তবে সেই সমস্যা মেটাতে মুশকিল আসান করবে আপনার পিএফ অ্যাকাউন্ট। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সিতারমন ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন, পিএফ থেকে ফেরত অযোগ্য অগ্রিমের ৭৫ শতাংশ বা তিন মাসের বেতনের মধ্যে যার পরিমাণ কম, সেই অর্থ তোলা যাবে। আর তা হাতে পেতে অনলাইনেই করতে পারেন আবেদন।

মাসকাবারি বাজারের পরেও ২১ দিনের লকডাউন হবে শুনে কেউ প্রায় একমাসের বাজার সেরে রেখেছেন। মারণ ভাইরাসের প্রকোপের জেরে নাস্তানাবুদ অবস্থা গৃহকর্তাদের। কেউ আবার জানেনও না পরের মাসে ১০ তারিখের মধ্যে নিজের অ্যাকাউন্টে তাঁর বেতন ঢুকবে কিনা। এমতাবস্থায় কাজে লাগতে পারে আপনার পিএফ একাউন্ট। পিএফের টাকা হাতে পেতে ছোটাছুটির প্রয়োজন নেই। বাড়িতে বসে অনলাইনেই পিএফ-এর টাকা পাওয়ার আবেদন করতে পারেন পিএফ সাবস্ক্রাইবাররা। এর জন্য প্রথমে যেতে হবে ইপিএফও ওয়েবসাইটে। ওয়েবসাইটে গেলেই মিলবে কম্পোজিট ক্লেম ফর্ম। এরপর এই কম্পোজিট ক্লেম ফর্ম পূরণ করে অর্থের জন্য আবেদন করতে হবে। কম্পোজিট ক্লেম ফর্ম সাধারণত দু’ধরনের, আধার ও নন আধার। অর্থাৎ পিএফ একাউন্টের সঙ্গে আধার নম্বরটি যুক্ত করা থাকলে কম্পোজিট ক্লেম ফর্ম (আধার) পূরণ করতে হবে। পিএফ একাউন্ট এ যাদের আধার যুক্ত করা নেই তাদের ক্ষেত্রে কম্পোজিট ক্লেম ফর্ম (নন আধার) প্রযোজ্য হবে। অ্যাকাউন্টের সঙ্গে আধার নম্বর যুক্ত করা থাকলে কাজটি অনেক সহজ হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র প্রয়োজন ১২ ডিজিটের ইউনিভার্সাল অ্যাকাউন্ট নম্বর(UAN) প্রয়োজন। ইউএএন সহ নির্দেশমতো ওই ফর্ম পূরণ করতে হবে। এবং ফর্মের সঙ্গে যুক্ত করতে হবে ক্যানসেলড চেকের একটি স্ক্যান কপি। তারপর তা পাঠিয়ে দিতে হবে সংশ্লিষ্ট ইপিএফও দফতরে।

[আরও পড়ুন:‘বিনা বেতনে কাজ নয়’, লকডাউনের মধ্যে ধর্মঘটে উত্তরপ্রদেশের অ্যাম্বুলেন্স কর্মীরা]

ইপিএফও একাউন্টের সঙ্গে আধার নম্বরটি যুক্ত করা না থাকলেও অনলাইনে আবেদন করা যাবে। সেক্ষেত্রে কম্পোজিট ক্লেম ফর্মে (নন আধার)শুধু লাগবে পিএফ একাউন্ট নাম্বার। এক্ষেত্রেও যুক্ত করতে হবে ক্যানসেলড চেকের একটি স্ক্যান কপি। তবে যদি পিএফ একাউন্ট এর বয়স পাঁচ বছরের কম অর্থাৎ আপনার কর্মজীবন পাঁচ বছরের কম হয় সেক্ষেত্রে প্যান নম্বর বাধ্যতামূলক। এছাড়াও ১৫জি/১৫এইচ নম্বর ফর্ম (দুই কপি)পূরণ করে কম্পোজিট ক্লেম সঙ্গে যুক্ত করতে হবে। ইউএএন না থাকলেও অসুবিধা নেই এক্ষেত্রে পিএফ একাউন্ট নাম্বারটি দিলেই হবে। যদিও অনলাইনে পিএফের অর্থের জন্য আবেদন করার আগে নিয়োগকর্তার কাছে ফর্ম নম্বর ১১য় আধার নম্বর এবং ব্যাংক একাউন্ট নম্বর সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য থাকাটা জরুরী। পাশাপাশি ইউএএন পোর্টালও এক্টিভেটেড থাকতে হবে।

[আরও পড়ুন:করোনা যুদ্ধে ব্রাত্য রাজনীতি, মোদির তহবিলে পাঁচ লক্ষ টাকা অনুদান মমতার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement