৫ মাঘ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

যাত্রীচাপ সামাল দিতে বদলাচ্ছে মেট্রোর সময়সূচি, বদল আসছে ই-পাসের নিয়মেও

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 2, 2020 6:58 pm|    Updated: December 2, 2020 7:10 pm

An Images

নব্যেন্দু হাজরা: স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে মহানগর কলকাতা (Kolkata)। তাল মিলিয়ে যাত্রীচাপ বাড়ছে শহরের লাইফলাইন মেট্রো (Metro) পরিষেবায়। তাই সোম থেকে শনিবার পর্যন্ত মেট্রো চলাচলের সময়সীমা অনেকটাই বাড়াচ্ছে কর্তৃপক্ষ। আগামী সোমবার অর্থাৎ ৭ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হচ্ছে নতুন সময়সূচি। সঙ্গে পরিবর্তন আসছে ই-পাসের নিয়মেও।

বুধবার বিজ্ঞপ্তি জারি করে মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সকাল সাড়ে আটটার বদলে দিনের প্রথম মেট্রো ছুটবে সকাল ৭টায়। বর্তমানে নোয়াপাড়া বা দমদম থেকে রাত ন’টায় শেষ মেট্রো ছাড়ে। আগামী সোমবার থেকে এই সময়সূচিতে বদল আসছে। নোয়াপাড়া থেকে শেষ মেট্রো ছাড়বে রাত ৯টা ২৫ মিনিটে। আর দমদম থেকে সেটি রওনা দেবে সাড়ে ন’টায়। নিত্যযাত্রীদের কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন : মধ্যবিত্তের হেঁশেলে আগুন, এক ধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম]

এদিকে লোকাল ট্রেনের চাকা গড়াতেই মেট্রোয় যাত্রী চাপ বাড়ছে। অফিস টাইম ছাড়াও যাত্রীর সংখ্যা ঊর্ধ্বমুখী। সামনেই আবার বড়দিনের উৎসবের মরশুম। তাই সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে যাত্রীচাপ সামাল দিতে বাড়ছে মেট্রোর সংখ্যাও। আরও ১৪টি মেট্রো চলাচল করবে রোজ। বর্তমানে ১৯০টি মেট্রো চলাচল করে। সেই সংখ্যাটা বেড়ে হচ্ছে ২০৪।

তবে সাধারণ যাত্রীদের মনে এখনও ই-পাস নিয়ে ভীতি দূর হচ্ছে না। অনেকেই এই জটিল প্রক্রিয়ার জন্য মেট্রোয় চড়তে ইতস্তত করছেন। তাঁদের কথা মাথায় রেখে নয়া নিয়ম আনল কর্তৃপক্ষ। এদিনের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সকাল সাতটা থেকে আটটা পর্যন্ত এবং রাত আটটার পরের মেট্রোয় যাতায়াত করলে কোনও ই-পাস (Epass) প্রয়োজন হবে না। পাশাপাশি, বৃদ্ধ, ১৫ বছরের কমবয়সি এবং মহিলাদের জন্য সারাদিনই কোনও ই-পাসের প্রয়োজন হবে না। মেট্রো কর্তৃপক্ষের আশা, এর ফলে যাত্রীদের অনেকটাই সুবিধা হবে। তবে এখনই চালু হচ্ছে না টোকেন।

[আরও পড়ুন : ‘রাজ্যের উন্নয়নে বাঙালি থেকে অবাঙালিদের অবদান বেশি’, বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে দিলীপ]

ইতিমধ্যে ই-পাস নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। নতুন বছরের গোড়াতেই মেট্রোসফরে ধাপে ধাপে বন্ধ হতে পারে ই পাস। অন্তত তেমনই পরিকল্পনার কথা ভাবা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রবীণ নাগরিকদের এবং দুপুরের দিকে মহিলা ও শিশুদের ই পাস লাগছে না। আর তাতে সুফলও মিলেছে হাতেনাতে। এক ধাক্কায় দিনে প্রায় বারো হাজার যাত্রী বেড়েছে। এরপর প্রথমে সারাদিনই মহিলা শিশুদের ই-পাসে ছাড়, পরে সমস্ত যাত্রীদের জন্যই শনি ও রবিবার ই-পাস বন্ধ করার কথা ভাবা হচ্ছে। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement