BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বুথ সামলাল প্রমীলা বাহিনী, নারীশক্তির কর্মক্ষমতা দেখল উত্তর কলকাতা

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 20, 2019 9:43 am|    Updated: May 20, 2019 9:43 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার ‘পিংক বুথ’ দেখল কলকাতা শহর। উত্তর কলকাতার একমাত্র মেয়েদের স্কুল নারীশিক্ষা মন্দিরে দেখা গেল এই চিত্র। স্কুলের পাঁচটি বুথের প্রতিটির পোলিং অফিসার থেকে শুরু করে নিরাপত্তারক্ষী, সবাই মহিলা। মহিলাদের উদ্যোগে দুর্গা পুজোর আয়োজন দেখেছে এ শহর। কিন্তু একাধিক মহিলা পরিচালিত বুথ এবার প্রথম দেখল উত্তর কলকাতা।

ডানদিকে বলহরি সর্দার আর মানিক শীলের বাড়ি। উত্তর কলকাতার এ তল্লাট জুড়ে বনেদিয়ানার ছাপ স্পষ্ট। বাড়ি দু’টিকে ডানদিকে রেখে গাড়ি ঢুকল বাঁদিকের সরু গলিতে। ধাক্কা গেল এলাকার একমাত্র মেয়েদের স্কুল নারী শিক্ষা মন্দিরে। সেখানেই দশ নম্বর ওয়ার্ডের পাঁচটি বুথ। বাইরে থেকে দেখতে আর পাঁচটা বুথের মতোই। কিন্তু ভোট দিতে ঢুকে একটু অবাকই হচ্ছেন ভোটাররা। বছর সত্তরের এক বৃদ্ধ তো বলেই ফেললেন, এখানে কি ছেলেদের ভোট দেওয়া মানা? না, তেমনটা নয়। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে ভোট দিচ্ছেন এখানে। তবে, বুথের ভিতর ঢুকলে ধরা পড়বে এটা আর পাঁচটার চেয়ে আলাদা। প্রথম পোলিং অফিসার, দ্বিতীয় পোলিং অফিসার এবং তৃতীয় পোলিং অফিসার সবাই মহিলা ওই স্কুলের সমস্ত বুথেই। সিআরপিএফ বাদ দিলে নিরাপত্তারক্ষীরাও মহিলা।  

[ আরও পড়ুন: ‘মিমিকে দেখুন কোথাও গিয়ে মেকআপ নিচ্ছেন’, নির্বাচন শেষে খোশমেজাজে অনুপম ]

সুষ্ঠুভাবে ভোট পরিচালনা শুধু নয়, বুথের অন্দরে এজেন্টদের বচসাকেও রীতিমতো কড়া হাতে সামলাল প্রমীলা বাহিনী। বুঝিয়ে দিল, পুরুষদের থেকে কোনও অংশেই কম নন তাঁরা। কেমন অভিজ্ঞতা? নারী শিক্ষা মন্দিরের ফার্স্ট পোলিং অফিসার মৌসুমি দাস জানালেন, “এতদিন স্কুল আর সংসারের গণ্ডিতেই সীমাবদ্ধ ছিলাম। কিন্তু ভোট উৎসবে অংশ নিতে পারার অনুভূতিই আলাদা।” একই সুর ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের রানি ভবানী এইচএস স্কুলের পোলিং অফিরার উমা চৌধুরির। তাঁর কথায়, “এই অভিজ্ঞতা আমার আত্মবিশ্বাস কয়েকশো গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে।”

[ আরও পড়ুন: গুজব ছড়িয়ে ইভিএম বদলানোর চেষ্টা করছে বিজেপি, এক্সিট পোল নিয়ে অভিযোগ মমতার ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement