BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সবার আগে দেশ, রাজনীতি সরিয়ে মোদির সর্বদল বৈঠকে থাকবেন মমতা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 18, 2020 5:07 pm|    Updated: June 18, 2020 5:16 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের নিরাপত্তা সংক্রান্ত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক। তাই বৃহত্তর স্বার্থে সংঘাত ভুলে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গালওয়ানে (Galwan Valley) চিন সেনার আগ্রাসন ও সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে পদক্ষেপ নিতে শুক্রবার সর্বদল বৈঠক ডেকেছেন নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। তাতে আমন্ত্রণ করা হয়েছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকেও। এমন এক পরিস্থিতিতে কেন্দ্রকে সবরকমভাবে সাহায্য করতে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। নবান্ন সূত্রে খবর, শুক্রবার লাদাখ নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে সর্বদল বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন মমতা। দিতে পারেন প্রয়োজনীয় পরামর্শও।

করোনা, লকডাউন পরিস্থিতি অথবা আনলকের পদ্ধতি সংক্রান্ত কেন্দ্রের ডাকা বৈঠকে সবসময় তেমন গুরুত্ব দেওয়া হয়নি বাংলাকে। বহু সময়েই বাংলার সঙ্গে এমন বঞ্চনার অভিযোগ উঠেছে। রাজনৈতিকভাবে বিরোধ আছে বলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের প্রতি এমন বৈষম্যমূলক আচরণ, এই অভিযোগ সরব হয়েছে শাসকেদল। সম্প্রতিই এমনটা ঘটেছে আনলক নিয়ে সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে। দু দফায় সব মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির কথা হলেও, বক্তা তালিকা থেকে বাদ ছিলেন মমতা। তাই বুধবার ওই নির্দিষ্ট সময় তিনি নিজে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছেন।

[আরও পড়ুন: লাদাখে হামলার প্রতিবাদে চিনা কনস্যুলেটের সামনে কম্পিউটার পুড়িয়ে বিক্ষোভ বিজেপির]

তবে গালওয়ানে চিন সেনার আগ্রাসন, ভারতীয় সেনার শহিদ হওয়ার মতো ঘটনা দেশের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। সেই আবহে সবকটি দলের পরামর্শ মেনে পদক্ষেপ স্থির করতে চায় নরেন্দ্র মোদি সরকার। এমন বৃহত্তর স্বার্থে যে কোনও সংঘাত ভুলে কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে সাহায্য করাই যে দস্তুর, রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে তা বেশ বোঝেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, ”দেশ আগে, তারপর সব।” সে কারণেই শুক্রবারের সর্বদল বৈঠকে যোগদানের আহ্বান গ্রহণ করেছেন।

[আরও পড়ুন: মানসিক অবসাদের জের! খাস কলকাতায় একই দিনে আত্মহত্যা ৭ জনের]

এর আগে গত বছর ফেব্রুয়ারিতে পুলওয়ামা হামলার বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনা বাহিনীর বিমান হামলা নিয়ে সকলকে অবগত করতে নরেন্দ্র মোদি সর্বদল বৈঠক ডেকেছিলেন। এছাড়া নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি সকলের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিশেষ পক্ষপাতী নন, বিরোধীরা এই অভিযোগ বারবার তুলেছে। তবে লাদাখের ঘটনার পরই তাঁর সর্বদল বৈঠকের ডাক নিশ্চিতভাবে অভিযোগ নস্যাৎ করে দিল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement