৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অর্ণব আইচ: পুজোর আগে নিউ মার্কেট ভিড়ে ঠাসা। তারই ফাঁকে এক মহিলার মোবাইল ও টাকা লুট হয়ে গেল। তবে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তা উদ্ধার করল নিউ মার্কেট থানার পুলিশ। পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার রাঁচির মহিলা লুটেরা গ্যাংয়ের এক সদস্য। মুসকান কুমারী নামে ওই মহিলাকে হেস্টিংস এলাকার একটি ঝুপড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই ঘটনায় সতর্ক হয়েছেন ভিড় বাজারে কেনাকাটা করতে যাওয়া ক্রেতারা।

[আরও পড়ুন: পুলিশের ‘মার খেয়ে’ হাজতে আংশিক সময়ের অধ্যাপকরা, বেতন বাড়ালেন মমতা]

পুলিশ সূত্রে খবর, হাওড়ার বাসিন্দা আশা সোনকার নিউ মার্কেটে এসেছিলেন পুজোর বাজার করতে। রবিবার বিকেলে ভিড়ের মধ্যে তাঁর ব্যাগ থেকে উধাও হয়ে যায় দামি মোবাইল ও ৯০০০ টাকা। তিনি নিউ মার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। জানা গিয়েছে, নিউ মার্কেট থানার ওসি সুপ্রিয় পাল ও অন্য আধিকারিকরা সিসিটিভির ফুটেজ খতিয়ে দেখেন। সেখানেই স্পষ্ট হয় অভিযুক্ত ওই মহিলার চেহারা। তার সন্ধানে শহরের বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয় তল্লাশি। শেষ পর্যন্ত হেস্টিংসের একটি ঝুপড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশ জানতে পারে, পুজোর আগে রাঁচি থেকে শহরে এসেছে এই গ্যাংটি। তারা হেস্টিংসে ঝুপড়ি ভাড়া করে রয়েছে। দেখতে সুন্দরী এই মহিলাদের মূল
টার্গেট মহিলারাই। নিউ মার্কেট ও শহরের বিভিন্ন বাজারে ভিড়ের মধ্যে মিশে গিয়ে তারা মহিলাদের ব্যাগ থেকে লুটপাট চালায়। তাদের চেহারা ও চলন দেখে সন্দেহের অবকাশ হয় না। পুলিশের ধারণা, রাঁচি গ্যাংয়ের অন্য সুন্দরী মহিলারাও এসে হাজির হয়েছে কলকাতায়। পুলিশ তাদের সন্ধান চালাচ্ছে।
এদিকে, সাহায্য করার নাম করে এক বৃদ্ধের কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনার সাক্ষী রইল কলকাতা। নিউ আলিপুর থানার পুলিশ ছোটকা হালদার নামে এক দুষ্কৃতীকে বেহালা থেকে গ্রেপ্তার করে ওই মোবাইলটি উদ্ধার করে। পুলিশ জানিয়েছে, ঝাড়খণ্ডের গিরিডির বাসিন্দা বৃদ্ধ দেগলাল রাই তাঁর মেয়ের বাড়িতে আসছিলেন। নিউ আলিপুরের মহাবীরতলা মোড়ে তিনি মোবাইলে ফোন করে মেয়ের ঠিকানার খোঁজ করছিলেন। তিনি এক যুবকের সাহায্য চান। সাহায্য করার নামেই তাঁর মোবাইল ছিনতাই করে পালায় দুষ্কৃতী। দুপুর থেকে তিনি সারাদিনই রাস্তায় ঘুরতে থাকেন। এলাকার বাসিন্দারাই তাঁকে থানার পথ দেখান। রাতে তিনি থানায় যান। নিউ আলিপুর থানার অফিসাররা পুরো বিষয়টি শুনে তাঁর খাওয়ার ব্যবস্থা করেন। মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই দেগলাল রাইয়ের জামাইকে খবর দেন। জামাই এসে শ্বশুরকে বাড়িতে নিয়ে যান। তার মধ্যেই পুলিশ ওই ছিনতাই হওয়া মোবাইলের সন্ধান করতে শুরু করে। বেহালা থেকে গ্রেপ্তার হয় ওই দুষ্কৃতী। উদ্ধার হয় মোবাইলটিও।

[আরও পড়ুন: জনতার মন বুঝতে নিজেই আসরে মমতা, হাওড়ায় বৈঠকের আগে বসতি ঘুরে শুনলেন অভিযোগ]

পরিচারিকার পরিচয়ে বাড়িতে ঢুকে সেখান থেকে টাকা ও গয়না লুটের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর কলকাতায়। সিঁথি এলাকার সাউথ সিঁথি রোডের একটি বাড়ির আলমারি থেকে ২৫ হাজার টাকা নগদ ও প্রায় চার লাখ টাকার সোনার গয়না চুরি যায়। অভিযোগের তদন্তে নেমে শিবানী মণ্ডল ও প্রতিমা গোস্বামী নামে দুই পরিচারিকাকে সিঁথি থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করে। এক পরিচারিকার বাড়ির কলাগাছের
গোড়ায় মাটি খুঁড়ে সেই টাকা ও গয়না উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং