BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মোবাইল সংস্থার কর্মী পরিচয়ে আর্থিক প্রতারণা, কলকাতায় ফের ‘অপারেশন’ জামতাড়া গ্যাংয়ের!

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 12, 2020 8:58 am|    Updated: June 12, 2020 8:58 am

An Images

অর্ণব আইচ: মোবাইল ফোনের দখল নিয়ে এক ব্যক্তির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ১১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা জালিয়াতি করল জালিয়াতরা। এই বিষয়ে সার্ভে পার্ক থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুলিশের ধারণা, এই ঘটনার পিছনে রয়েছে কুখ্যাত সেই জামতাড়া গ্যাং

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগকারী ওই অঞ্চলের একটি নামী বহুতল আবাসনের বাসিন্দা। সম্প্রতি এক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি নিজেকে একটি মোবাইল সংস্থার কর্মী বলে পরিচয় দিয়ে তাঁকে ফোন করে। আপডেট করা ও আরও কিছু তথ্য জানার নাম করে তাঁকে একটি লিংক পাঠানো হয়। তিনি সেই লিংকটি ডাউনলোড করার পর তাঁর মোবাইল ‘মিরর’ করে নেয় ব্যাংক জালিয়াতরা। আক্ষরিক অর্থে মোবাইলের দখল নিয়ে তাঁর যাবতীয় ব্যাংকের লেনদেন হাতের মুঠোয় নিয়ে নেয় তারা। এমনকী মোবাইলে আসা ওটিপিও চলে আসে জালিয়াতদের হাতের মুঠোয়। অভিযোগকারীর অ্যাকাউন্ট থেকে এভাবেই জালিয়াতরা ১১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা তুলে নেয় বলে অভিযোগ। ব্যাংক থেকে এই টাকা তোলার বার্তা তিনি পাওয়ার পরই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনাটির তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: পরিস্থিতি স্বাভাবিকের পর শিশুদের স্কুল খোলা হোক, হাই কোর্টে মামলা বিজেপি নেত্রীর]

এই প্রথমবার নয়। এর আগে একাধিকবার কলকাতায় জামতাড়া গ্যাংয়ের মাধ্যমে প্রতারণার শিকার হয়েছেন বহু মানুষ। চলতি মাসেই কেওয়াইসি আপডেট করার নাম করে বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের এক বাসিন্দার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় ৪৯ হাজার ৭৯৯ টাকা তুলে নিল জালিয়াত। এই বিষয়ে বালিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। লালবাজারের গোয়েন্দারা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন। গোয়েন্দাদের ধারণা, এই জালিয়াতির পিছনে রয়েছে কুখ্যাত জামতাড়া গ্যাং। জামতাড়া থেকেই জালিয়াতরা অভিযোগকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল কি না তা জানার চেষ্টা করছেন গোয়েন্দারা।

গত মে মাসেও ঘটে প্রায় একই ঘটনা। পার্ক স্ট্রিটের একটি রেস্তরাঁ থেকে হোম ডেলিভারির নাম করে জালিয়াতি করা হয়। এক ব্যক্তি অভিযোগকারীকে ফোন করে নিজেকে পার্ক স্ট্রিটের একটি নামী রেস্তরাঁর ম্যানেজার বলে পরিচয় দেয়। বলে, রেস্তরাঁর তরফ থেকে হোম ডেলিভারি দেওয়া শুরু হয়েছে। এখন দশ টাকা দিয়ে বুক করলে পরের দিন খাবারের অর্ডার দেওয়া যাবে। বাড়িতে পৌঁছে যাবে খাবার। নেতাজিনগরের ওই বাসিন্দা রাজি হলে তাঁর মোবাইলে ওই ব্যক্তি একটি লিংক পাঠায়। সেই লিংকে ক্লিক করা মাত্র দুই হাজার টাকা তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে চলে যায়। টাকা ফেরত দেওয়ার নাম করে অন্য একটি লিংক তাঁকে পাঠানো হয়। ওই লিংকে ক্লিক করার পরই তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে তুলে নেওয়া হয় ৩২ হাজার টাকা। এরপরই তিনি নেতাজিনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

[আরও পড়ুন: মানবিক রাজ্য সরকার, করোনা সংক্রমণ রুখতে পড়ুয়াদের জন্য নয়া ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement