১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Partha Chatterjee: জেলে আচমকা অসুস্থ পার্থ চট্টোপাধ্যায়, নিরাপত্তার ঘেরাটোপে নিয়ে যাওয়া হল এসএসকেএমে

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 20, 2022 4:07 pm|    Updated: August 20, 2022 4:54 pm

SSC scam accused Partha Chatterjee rushed to SSKM Hospital from Presidency Jail | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রেসিডেন্সি জেলে আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়লেন এসএসসি (SSC) দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে গ্রেপ্তার রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)। শনিবার দুপুরে সেলের ভিতরে তিনি অসুস্থ বোধ করায় তড়িঘড়ি নিরাপত্তার ঘেরাটোপে নিয়ে যাওয়া হল এসএসকেএম (SSKM) হাসপাতালে। সেখানে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করবেন চিকিৎসকরা। জানা গিয়েছে, পার্থবাবুর শরীরে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা কমেছে, শ্বাসকষ্ট হচ্ছে তাঁর। এদিন হাসপাতালের সামনে গাড়ি থেকে নেমে অসুস্থ অবস্থাতেই প্রাক্তন মন্ত্রী জানান, ‘শরীরটা ভাল নেই।’

জেল সূত্রে খবর, ইদানিং নিজের সেলেই থাকছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেল ছেড়ে বেরচ্ছিলেন না। বেশিরভাগ সময় ঘুমিয়ে কাটাচ্ছিলেন। নিয়মিত তাঁর শারীরিক পরীক্ষা চলছিল। তবে শনিবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ অসুস্থ বোধ করতে থাকেন ৭০ বছরের পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর শ্বাসকষ্ট হতে শুরু করে। এরপরই তড়িঘড়ি তাঁকে বিশেষ নিরাপত্তায়, ৩ টি কনভয়-সহ নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকএমে। সেখানেও দ্রুত নিরাপত্তা বাড়ানো হয় কয়েকধাপ। সম্ভবত তাঁর ইসিজি, এক্স-রে, সুগার, প্রেশার, ক্রিয়েটিনিন-সহ একাধিক পরীক্ষা করা হয়েছে। 

[আরও পড়ুন: অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে রাধাকৃষ্ণের ‘অশ্লীল’ ছবি, নেটদুনিয়ায় ট্রেন্ডিং ‘বয়কট আমাজন’]

পার্থবাবুর প্রাথমিক শারীরিক পরীক্ষা করে চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, নার্ভাস ব্রেকডাউন হচ্ছিল তাঁর। বুক ধরফড় করছিল। তবে এখনই হাসপাতালে ভরতি হওয়ার কোনও দরকার নেই বলে জানান চিকিৎসকরা। তাঁর স্বাস্থ্যপরীক্ষার পর ফের প্রেসিডেন্সি জেলে ফিরে বিশ্রাম নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।  তাঁর পা ফোলা সামান্য কমেছে। তবে হুইল চেয়ার ব্যবহার করতে হচ্ছে।

এর আগে ১৪ তারিখ প্রেসিডেন্সি জেলে গিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করেন এসএসকেএমের চিকিৎসকরা। স্থূলকায়তার কারণে পার্থবাবুর কিছু সমস্যা হচ্ছিল। জেলের চিকিৎসক ডাঃ প্রণবকুমার ঘোষ তাঁর সুপারিশে বলেছিলেন, যেহেতু জেলে আলাদা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নেই, তাই বাইরের বিশেষজ্ঞ এনে গাইডলাইন করে দেওয়া হোক। সুপার দেবাশিস চক্রবর্তী সুপারিশটি ডিআইজি অরিন্দম সরকারকে পাঠিয়ে দেন। অরিন্দমবাবু কারাদপ্তর থেকে পাঠান নবান্নতে। নবান্ন পাঠায় সিএমওএইচকে। সেখান থেকে বার্তা যায় পিজি এবং বাঙুরে। শনিবার দু’জায়গা থেকে আটজন করে ষোলোজনের টিম যায় জেলে। 

[আরও পড়ুন: ‘ফের ২৬/১১-এর মতো হামলা হবে’, হুমকি এল পাকিস্তান থেকে, তীব্র আতঙ্ক মুম্বই জুড়ে]

সম্প্রতি জেলে কার্যত দুঃসময় কাটাচ্ছেন প্রাক্তন মন্ত্রী। মনোকষ্টে রয়েছেন তিনি। বারবার নিজেকে ‘কয়েদি’ বলছেন, আক্ষেপ করছেন। তারউপর সহবন্দিরা তাঁকে দেখে নানা কটূক্তি করছে বলে জেল সূত্রে খবর। সেই কারণে ইদানিং তিনি সেলের বাইরে বেরচ্ছেন না। এতদিন ধরে ‘কথামৃত’ পড়েছেন, এবার তিনি কবিতা পড়তে চেয়েছেন বলে জেল সূত্রে খবর। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে