২ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জয় হিন্দ ধাবায় শ্লীলতাহানির শিকার মহিলা, প্রতিবাদ করতে গিয়ে আহত ৩ বন্ধু

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 10, 2020 11:57 am|    Updated: March 10, 2020 2:20 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাতের কলকাতা যে এখনও মহিলাদের জন্য সুরক্ষিত নয়, তা আরও একবার প্রমাণ হয়ে গেল নারীদিবসের ঠিক আগের দিন। গত শনিবার শরৎ বোস রোডের জয় হিন্দ ধাবায় শ্লীলতাহানির শিকার হলেন দুই মহিলা। তাঁদের রক্ষা করতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন তাঁদেরই দুই পুরুষ বন্ধু। গোটা ঘটনায় জয় হিন্দ ধাবার মালিকও যুক্ত রয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

সোশ্যাল সাইটে এক মডেল সম্প্রতি ঘটনার কথা প্রকাশ করেছেন। তিনি লিখেছেন, গত শনিবার চার বন্ধু শরৎ বোস রোডের জয় হিন্দ ধাবায় যান। এই চারজনের মধ্যে ছিলেন দু’জন মহিলা ও দু’জন পুরুষ। সেখানে তাঁরা যখন খাবার খাচ্ছিলেন তখন কিছু দূরে অন্য একটি টেবিলে বসে কয়েকজন যুবকও খাবার খাচ্ছিল। অভিযোগ, ওই যুবকদের মধ্যে একজন দুই মহিলার মধ্যে একজনের দিকে অশালীন ইঙ্গিত করে। এমনকী ওই মহিলার বুকে হাত দেওয়ার চেষ্টা হয় বলেও অভিযোগ। সঙ্গে সঙ্গে ধাবার মালিককে ঘটনার কথা জানান চার বন্ধু। গোটা ঘটনাটি রেকর্ড করেন অন্য মহিলা।

[ আরও পড়ুন: বিদেশযাত্রীদের জন্য সুখবর, ‘নো করোনা সার্টিফিকেট’ দিচ্ছে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতাল ]

এখানেই শেষ নয়। রাতে খাওয়া সেরে যখন চার বন্ধু বাড়ি ফেরার জন্য উঠে পড়েন, তখন উপস্থিত হয় আরও একটি সমস্যা। প্রায় ১৫ জন তাঁদের ঘিরে ধরে। বোঝাই যাচ্ছিল ওই চারজনকে আঘাত করার উদ্দেশ্যেই গুন্ডাদের আগমন। সোশ্যাল সাইটে যিনি ঘটনার কথা পোস্ট করেছেন, তাঁর অনুমান, ধাবার মালিকই ওই গুন্ডাদের ডেকেছিলেন। কিছুক্ষণ কথা কাটাকাটির পর গুন্ডারা চার বন্ধুর উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। এলোপাতাড়ি মারতে থাকে তাঁদের। দুই মহিলা হাত মাথার উপর তুলে কোনওক্রমে রক্ষা পান। কিন্তু তাঁদের দুই পুরুষ বন্ধু অক্ষত থাকতে পারেননি। একজনের তো মার খেয়ে দুই চোখ রীতিমতো ফুলে যায়। নাক দিয়ে রক্ত গড়াতে থাকে। ওই অবস্থায় নিজেদের বাঁচিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান তাঁরা। অভিযোগ, এই ঘটনার সময় জয় হিন্দ ধাবার কোনও গ্রাহক বা ওয়েটার ওই চার বন্ধুকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেননি। তবে ধাবায় এক মহিলা উপস্থিত ছিলেন যিনি ঘটনাটি দেখে এগিয়ে আসেন। কিন্তু তিনিও আহত হন। তাঁর মাথায় আঘাত লাগে।

এই ঘটনার পর অভিযোগকারীর বক্তব্য, জয় হিন্দ ধাবা শহরের অন্যতম বিখ্যাত হ্যাংআউটের জায়গা। এই রকম একটি ধাবায় চার বন্ধুর সঙ্গে এমন ঘটনা ঘটল যা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। দিনের পর দিন খাস কলকাতায় এমন ঘটনা ঘটলে তার প্রতিকার নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অভিযোগকারী। তাঁর আরও প্রশ্ন, মানুষের কি মনুষ্যত্ব লোপ পেয়ে যাচ্ছে? ওই যুবকের দলটিকে প্রথমেই ধাবা থেকে বের করে দেওয়া হল না কেন? কারওর সুরক্ষা থেকে ধাবার নাম কি বেশি গুরুত্বপূর্ণ?

[ আরও পড়ুন: নারী সুরক্ষা বাড়ানোর উদ্যোগ, এবার বাসের চালক-কনডাক্টরদের প্রশিক্ষণ দেবে লালবাজার ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement