২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রেশার-সুগারের সমস্যায় ভুগছেন? রোজ সকালে এক কাপ ‘মোরিঙ্গা টি’তে চুমুক দিন

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: July 23, 2020 9:27 pm|    Updated: July 23, 2020 11:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সকাল সকাল এক কাপ ‘মোরিঙ্গা টি’তে (Moringa Tea) চুমুক দিলেই শরীর চাঙ্গা হয়ে যাবে! পাশাপাশি উপরি পাওনা শরীরের বাড়তি মেদ ঝড়ে গিয়ে অতিরিক্ত ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকা এবং রক্তচাপ বশে থাকা। বাহ! এই ব্যস্ত জীবনে যেখানে প্রায় ঘরে ঘরে প্রেশার কিংবা ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যার কথা শোনা যায়, সেখানে এমন একটা ‘ম্যাজিকাল টি’তে চুমুক মেরেই যদি এসব সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়, তাতে ক্ষতি কী! দাঁড়ান দাঁড়ান! নাম শুনেই ভিড়মি খেয়ে যাবেন না যে কী এই ‘মোরিঙ্গা টি’? কোথাই বা পাবেন? তাহলে বলে দিই, এ আমাদের অতি পরিচিত সজনে ডাটা গাছের শুকনো পাতা দিয়ে বানানো চা। অতঃপর আশা করাই যায় যে আপনি নিশ্চিন্ত হলেন- ‘মোরিঙ্গা টি’ এমন কিছু দুর্মুল্য নয়! সহজলভ্য এই চায়ের গুণাগুণ তাক লাগাচ্ছে গোটা বিশ্বকে। শুনলে অবাক হবেন আপনিও।

জেনে নেওয়া যাক তাহলে ‘মোরিঙ্গা টি’র কী কী গুণাগুণ রয়েছে? সজনে গাছের পাতা শুকিয়ে গুঁড়ো করে চা কিংবা কফির সঙ্গে মিশিয়ে খেলে ব্লাড প্রেশার অর্থাৎ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। মেদ ঝড়ে গিয়ে বাড়তি ওজনও কমাতে সাহায্য করে এই পাণীয়। এর পাশাপাশি জানা গিয়েছে, ‘মোরিঙ্গা টি’র কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও নেই। তা অতিরিক্ত ওজন কিংবা ব্লাড প্রেশারকে কাবু করতে এর থেকে আর ভাল কী-ই বা হতে পারে!

তবে হ্যাঁ, শুধু চা কিংবা কফি নয়, নির্ভয়ে যে কোনও খাবারের সঙ্গেও মিশিয়ে খেতে পারেন সজনে পাতার গুঁড়ো। বাজারে না পেলে নেটদুনিয়ায় সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন ‘মোরিঙ্গা’র বক্স কিংবা কৌটো। চা-কফি খাওয়ার অভ্যেস না থাকলে ডালে দিয়েও খেতে পারেন।

[আরও পড়ুন: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াচ্ছে আইসক্রিম, চবনপ্রাস আর হলুদের স্বাদে বাজিমাত]

 

সজনে গাছের পাতায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন আর খনিজের সম্ভার রয়েছে। সঙ্গে পাবেন অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও। ‘হাউ টু লস ব্যাক ফ্যাট’- এর লেখক সিন্থিয়া ট্রেনারের কথায়, “এতে ওজন কমানোর উপাদান যেমন রয়েছে, তেমনি প্রচুর এনার্জিও বাড়ায়।” সারাদিনে ২ বার চুমুক মারতেই পারেন ‘মোরিঙ্গা টি’তে। ওজন কমানোর পাশাপাশি এর মধ্যে থাকা কিউয়ারসেটিন ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে রাখে। একদল বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই পাতা গুঁড়ো চায়ের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে নাকি মধুমেহ কিংবা সুগারও নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে, এক্ষেত্রে আমরা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে খাওয়ার নিদানই দেব।

moringa

‘মোরিঙ্গা টি’ কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখায় হৃদরোগের সম্ভাবনাও কমে যায়। আর হ্যাঁ, স্বাস্থ্যজ্জ্বল সুন্দর ত্বক পেতে চাইলে মর্নিং সেশনে ‘মোরিঙ্গা টি’ কিন্তু মাস্ট! কারণ, এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের উপাদানও রয়েছে।

কীভাবে বানাবেন তাই তো? রেডিমেড গুঁড়ো পেয়ে গেলে ঝক্কি কম! জলে ফুটিয়ে ছেঁকে নিলেই তৈরি সবুজ মোরিঙ্গা চা। আর যদি বাড়িতে নিজে হাতে গুঁড়ো তৈরি করতে চান। তাহলে সজনে পাতা নিয়ে ভাল করে ধুয়ে শুকিয়ে নিন। আর সেই শুকনো পাতা মিক্সিতে দিয়ে গুঁড়ো করে নিন। সেই গুঁড়ো কৌটোয় ভরে রাখলে ১-২ মাস অনায়াসে চলে যাবে। তবে, অ্যালার্জি জাতীয় কোনও সমস্যা থাকলে কিন্তু ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া আবশ্যক খাওয়ার আগে।

[আরও পড়ুন: OMG! খাবারের পাতেও মাস্ক? করোনা আবহে স্পেশ্যাল মেনু এনে তাক লাগাল এই রেস্তরাঁ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement