BREAKING NEWS

২৮ চৈত্র  ১৪২৭  রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

খাদ্যরসিকদের জন্য সুখবর! টিউবে বন্দি খাঁটি নলেন গুড় এবার মিলবে অনলাইনে

Published by: Suparna Majumder |    Posted: January 1, 2021 11:56 am|    Updated: January 1, 2021 11:56 am

An Images

বিপ্লবচন্দ্র দাস, কৃষ্ণনগর: শীত পড়তেই নলেন গুড়ের (Nolen Gur) সন্দেশ এবং রসগোল্লার স্বাদ পাওয়ার ইচ্ছে জাগে না, এমন বাঙালির সংখ্যা নেহাতই খুব কম। কিন্তু ভেজাল মেশানো গুড়ের রমরমায় খাঁটি নলেন গুড় পাওয়া কিছুটা সমস্যাই বটে। বাঙালিকে খাঁটি নলেন গুড়ের স্বাদ পাইয়ে দিতে পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদ (Khadi and Village Industries Commission) ইতিমধ্যেই খাঁটি নলেন গুড়কে টিউবে বন্দি করে মানুষের সামনে এনেছে। এখন থেকে সাধারণ মানুষ অনলাইনে কিনতে পারবেন টিউব নলেন গুড়। বাংলার খাদি ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে কেনা যাবে এই নলেন গুড়।

জামা কাপড়ের মতই ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে টিউব-বন্দি খাঁটি নলেন গুড়। খাদ্যরসিকদের জন্য আরও আনন্দের খবর, নলেন গুড়ের উৎপাদন শুরু হওয়ার মুখে পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদের তৈরি টিউব নলেন গুড়ের দাম এখন কম। ১৫০ মিলি লিটার টিউবের দাম আগে ছিল ৮০ টাকা। বর্তমানে সেই টিউবের দাম কমে হয়েছে মাত্র ৬৪ টাকা। এই বিষয়ে খাদি বোর্ডের চেয়ারম্যান গৌরীশংকর দত্ত জানিয়েছেন, “নলেন গুড় তৈরির সিজন সবে শুরু হয়েছে। গত বছরের মতই উৎপাদন চলছে। এখন থেকে ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত এই উৎপাদন চলবে। খাঁটি নলেন গুড় টিউবে বন্দি করে রেখে দেওয়া হবে। যাতে সারাটা বছরই মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়।”

[আরও পড়ুন: রসগোল্লা নাকি গুলাব জামুন, ২০২০-তে সেরা কে? কী বলছে অনলাইন খাবার ডেলিভারি সংস্থার রিপোর্ট]

যদিও করোনা (COVID-19) পরিস্থিতির কারণে উৎপাদন বা বিক্রির ক্ষেত্রে কোন সমস্যা হচ্ছে কিনা, সে বিষয়ে গৌরীশংকর দত্তের মন্তব্য, “এখনও পর্যন্ত কোন সমস্যার মুখে পড়তে হয়নি। খাঁটি নলেন গুড় তৈরি করে তা টিউব-বন্দি করে বিভিন্নভাবে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে ক্রেতাদের কাছে। এখন থেকে অনলাইনের মাধ্যমেও ক্রেতারা এই নলেন গুড় পেতে পারেন।” পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদের উদ্যোগে ও অর্থসাহায্যে নদিয়ার ভাজনঘাটে ৩ বছর আগে তৈরি হয়েছে খাঁটি নলেন গুড় তৈরির কারখানা। খাঁটি নলেন গুড় উৎপাদনের দায়িত্বে রয়েছে শ্রীকৃষ্ণ নলেন গুড় উৎপাদক কল্যাণ সমিতি। মূলত ভাজনঘাট ও আশপাশের এলাকার যেসব মানুষ খেজুর গাছ থেকে খেজুর রস সংগ্রহ করেন, তাঁদের কাছ থেকে রস কিনে নেয় ওই সমিতি। এরপর সেই রসের মধ্যে চিনি বা জল জাতীয় কিছু মেশানো আছে কিনা, তা ওই কারখানার ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা হয়। এরপর কাঠের জালের মাধ্যমে তৈরি করা হয় খাঁটি নলেন গুড়। শ্রীকৃষ্ণ নলেন গুড় উৎপাদক কল্যাণ সমিতি নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের শেষপর্যন্ত কারখানায় তৈরি নলেন গুড় টিউব-বন্দি করে। সেই সমস্ত টিউব নিয়ে নেয় খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদ।

[আরও পড়ুন: করোনা কালে বাইরে যেতে ভয়? রেস্তরাঁর জিভে জল আনা ২ পদ বানান বাড়িতেই, রইল রেসিপি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement