২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

‘রাগ করলে করুন’, দোরে খিল এঁটে অতিথিকে দূরে রাখার পোস্টার গৃহবাসীর

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 18, 2020 9:20 pm|    Updated: April 18, 2020 10:09 pm

An Images

সুমিত বিশ্বাস: করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে লকডাউনে গোটা দেশ। সংক্রামক এলাকা সিল করে দেওয়া হয়েছে। সকলেই ঘরবন্দি। আত্মীয়স্বজন, প্রতিবেশী, বন্ধুবান্ধব – কেউ কারও বাড়ি যাওয়া-আসা নেই। প্রাচ্য দর্শন ‘বসুধৈব কুটুম্বকম’ অর্থাৎ পৃথিবীর সকলেই আত্মজন – ভারতের এই সনাতন আদর্শ আপাতত রোজকার জীবনে পালনের উপায় নেই। ‘অতিথি দেব ভব’ মন্ত্রও এখন আওড়াতে ভয় হচ্ছে। ভাবনায় চিরন্তন আদর্শ রাখলেও, ব্যবহারিক জীবনে প্রয়োগ করা যাচ্ছে না একেবারেই। ঘরে ডেকে আনা দূর অস্ত, আজ আর কেউ আত্মীয় বা অতিথিরা ঘরে আসুন, চাইছেন না একেবারেই। কারণ ওই, করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় প্রতি মুহূর্তে কাঁটা সকলে। তাই দূরত্ব যাপনই এখন নিরাপত্তার সর্বোত্তম উপায়।

এই পরিস্থিতিতে বাড়ির সদর দরজায় আর জায়গা নেই – ‘ওয়েলকাম’ শব্দটির। বরং তার জায়গা নিয়েছে অন্য কথা। বাড়ির বাইরে নতুন পোস্টারে লেখা – “রাগ করলে করুন। কিন্তু আগামী ১৫ দিন সরকারের নিয়ম মেনে আমাদের বাড়িতে আসবেন না। আমরাও আপনাদের বাড়িতে যাব না।” পোস্টারের নিচে গৃহকর্তার স্বাক্ষর।

PURULIA-2

মেলামেশা, আড্ডা, পাড়া বেড়ানো দূরে থাক। প্রতিবেশীদের মুখ দেখাদেখিও কার্যত বন্ধ। বারান্দায় দাঁড়ালে তবু হয়ত একটু অন্যের মুখ দেখা যাচ্ছে। কিন্তু ওই পর্যন্তই। এর বেশি চাইলে – কাঁটা করোনা। মধ্যবিত্ত গেরস্থের সহজাত স্বভাবই যেন পালটে দিয়ে যাচ্ছে COVID-19’এর কামড়। সেই জন্যেই তো দরজায় পোস্টারে লেখা – ‘রাগ করলে করুন।’ কারণ, আগে নিজের নিরাপত্তা, পরে সৌজন্য। অন্তত এই পরিস্থিতিতে। সে যাই হোক, লকডাউন মেনে চলছেন কেউ কেউ। কেউ আবার কিছুতেই মানছে না। তাঁদের জন্য বাড়ির বাইরে এই পোস্টারই বোধহয় যথাযথ।

[আরও পড়ুন: ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ করতে বিরক্তি? একঘেয়েমি কাটাতে কাজ করুন এভাবে]

পুরুলিয়া শহরাঞ্চলে অনেকেই লকডাউনকে তেমন পাত্তা দিচ্ছেন না। মাস্ক ছাড়াই চলছে কেনাবেচা। সেখানে দাঁড়িয়ে জেলার গ্রামাঞ্চলের ছবিটা একেবারেই আলাদা। সামাজিক দূরত্ব মেনে নিজেদের গৃহবন্দি রাখার নিদর্শন এই পোস্টার। ইতিমধ্যেই এই পোস্টার সোশ্যাল সাইটে ঘুরছে। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এই পোস্টারই যেন হাতিয়ার হয়ে উঠেছে। আসলে এই জেলাকে করোনামুক্ত করতে প্রশাসন যেমন চ্যালেঞ্জ নিয়েছে, তেমনই এই গাঁ-গঞ্জ সেই পথই অনুসরণ করে নিজেদের মত করে একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে। তাতে পাড়াপড়শি, অতিথি রাগ করলেও তা নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন না গৃহস্থরা। মানছেন ব্লক প্রশাসন থেকে জেলা প্রশাসনের কর্তারাও।

[আরও পড়ুন: সহজ উপায়ে করোনা আবহে নিজের বাড়িকে রাখুন জীবাণুমুক্ত, রইল টিপস]

সুফলও আছে এর। এখনও পর্যন্ত এই জেলায় একজনও করোনা পজিটিভ রোগীর খোঁজ মেলেনি। এই পোস্টারের পাশাপাশি এই জেলায় করোনা সচেতনতায় সকলকে গৃহবন্দি রাখতে ভোটের মতই দেওয়াল লিখনও শুরু হয়েছে। সুতরাং, করোনা ভাইরাস শুধু বিশ্বের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকেই দুরমুশ করে দিচ্ছে না, গেরস্থালিতেও বড়সড় ধাক্কা দিয়ে যাচ্ছে।

ছবি: অমিত সিং দেও। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement