৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo দিল্লি ২০২০ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এ যেন ঠিক সিনেমার গল্প। ‘হাম আপকে হ্যায় কউন’ ছবির কথা মনে আছে? সেখানে পাত্র মণীশ বহেলের কাকা অলোক নাথ ও পাত্রী রেনুকা সাহানের মা রিমা লাগুর মধ্যে কলেজ জীবনের সম্পর্ক নিয়ে ঠাট্টা তামাশা করতেন রিমার স্বামী অনুপম খের। সেই ইয়ার্কি উপভোগও করতেন রিমা লাগু ও অলোক নাথ। কারণ গোটাটাই ছিল মজার ছলে। কিন্তু বাস্তবেও এমন ঘটনা যে ঘটে না তা নয়। সম্প্রতি সুরাটেই মিলেছে তার প্রমাণ। পাত্রের বাবার সঙ্গে পাত্রীর মায়ের প্রণয়ের জেরে বিয়েটাই ভেঙে গেল যুবক-যুবতির।

গত এক বছর ধরে ওই যুবক ও যুবতির পরিবারের মধ্যে কথাবার্তা শুরু হয়। দু’জনের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে। তাঁদের এনগেজমেন্টও হয়ে যায়। তাঁরা একই সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন। ফলে কোনও সমস্যা হয়নি। কিন্তু বিয়ের একমাস আগেই ঘটল গন্ডগোল। ১০ জানুয়ারি থেকে পাত্রের বাবা রাকেশের (নাম পরিবর্তিত) কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। পেশায় তিনি কাপড়ের ব্যবসায়ী। এছাড়া একটি রাজনৈতিক দলের সঙ্গেও যুক্ত তিনি। পাত্রীর মা স্বাতীর (নাম পরিবর্তিত) সঙ্গে তাঁর পরিচয় অনেক আগে থেকেই। ছোটবেললায় রাকেশ ও স্বাতী আমরেলি জেলায় থাকতেন। একে অপরের প্রতিবেশি ছিলেন তাঁরা। তখন থেকেই তাঁদের মধ্যে হৃদ্যতা। কিন্তু তাঁদের বিয়ে হয়নি। স্বাতীর বিয়ে হয় নবসারি এলাকায়। দু’জনের মধ্য দূরত্ব এসে যায়।

[ আরও পড়ুন: প্রেমের টান! অষ্টম শ্রেণির ছাত্রকে নিয়ে চম্পট শিক্ষিকার ]

ঘটনাচক্রে এক বছর আগে রাকেশের ছেলের সঙ্গে স্বাতীর মেয়ের বিয়ে ঠিক হয়। ফের কাছাকাছি আসেন রাকেশ ও স্বাতী। ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে তাঁদের ছেলেমেয়ের বিয়ের দিন স্থির হয়। কিন্তু তার আগেই বাড়ি থেকে চম্পট দেন রাকেশ। এদিকে ওই একই দিন থেকে খোঁজ নেই স্বাতীরও।কেউ কেউ তো বলছেন, এত বছর পর পুরনো প্রেম চাগাড় দিয়ে উঠেছে। একসময় যে প্রেম বড়দের জন্য পূর্ণতা পায়নি, এবার নিজেরাই সেই প্রেমকে চরিতার্থ করতে উদ্যত হয়েছেন। তাই বেয়াই-বেয়ান হওয়ার আগে পালিয়ে স্বামী-স্ত্রী হয়ে গিয়েছেন তাঁরা। বিয়ে করে ফেলেছেন। যদিও রাকেশের ছেলে ও স্বাতীর মেয়ে কিন্তু এ ব্যাপারে একেবারে চুপ। একে তো পারিবারিক কেলেঙ্কারি। তার উপর বাবা-মায়ের জন্য তাঁদের নিজেদের প্রেমের তরী তো ডোবার পথে।

[ আরও পড়ুন: বানান ভুলে ভেস্তে যেতে পারে প্রেম! সমীক্ষায় প্রকাশ চাঞ্চল্যকর তথ্য ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং