৫ আশ্বিন  ১৪২৫  শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  |  পুজোর বাকি আর ২৪ দিন

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও রাশিয়ায় মহারণ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গবেষণা বলছে নিয়মিত শারীরিক সম্পর্কই স্মৃতিশক্তিকে প্রখর করে। শুধু কি শারীরিক সম্পর্ক?  একেবারেই না। মানসিক সম্পর্কেরও এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। পার্টনারের সঙ্গে মনের মিল খুব বেশি? দু’জন দু’জনকে কি চোখে হারান? তাহলে একদম চিন্তা করবেন না। এই আবেগই আপনাকে পার্টনারের সঙ্গে দীর্ঘ দাম্পত্যের সুযোগ করে দেবে। না না, একটা বয়সের পরে শুধু খিটমিটে ঝগড়া নয়, রীতিমতো মধুর দাম্পত্য। কেননা ভুলে যাওয়ার প্রবণতা তো আপনাকে ছুঁতেই পারবে না। একইভাবে আপনার পার্টনারকেও। তাই দাম্পত্য কলহের নো চান্স। মন দিয়ে সংসার করতে চাইলে এই নিয়মবিধি যে আপনাকে মেনে চলতেই হবে।

[কীভাবে বুঝবেন আপনার পুরুষ পার্টনারটি ভারজিন?]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওলঙ্গং বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলছেন, বেশি বয়সেও দাম্পত্যের গভীরতা বজায় রাখুন। তাহলেই ভুলে যাওয়ার রোগ আপনাকে ছুঁতে পারবে না। অটুট থাকবে দাম্পত্য প্রেম। কীভাবে বজায় রাখবেন দাম্পত্যের গভীরতা? গবেষকদের মতে, শারীরিক সম্পর্কই এর মূল চাবিকাঠি। যদিও বয়স বাড়লে এমনিতেই তাতে ছেদ পড়ে। তবে প্রাকৃতিক নিয়মে ছেদ পড়লেও পার্টনারের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক বজায় রাখুন। তাহলেই দেখবেন বুড়ো বয়সে ভুলে যাওয়ার রোগ আপনাকে ঈর্ষান্বিতভাবে দেখছে।

পঞ্চাশোর্ধ্ব ছ’হাজার দম্পতির উপরে এই গবেষণা চালিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। সেই রিপোর্টই বলছে, মদ্যপান, ধূমপান, নিয়মিত যৌন মিলনই মানুষকে মানসিকভাবে প্রৌঢ়ত্বের দিকে টানতে পারে না। তাই বয়স বাড়লেও পার্টনারের প্রতি ভালবাসাটা থেকেই যায়। যৌবনের সময়কাল থেকেই ধীরে ধীরে মদ্যপান, ধূমপানে অভ্যস্ত হতে শুরু করেছেন। একটা সময়ে শারীরিক সম্পর্কও নিত্যকাজের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছে। সমাজ সংসারের কোথাও কোনও অনিয়ম চোখে পড়ছে না। আচমকাই একটা সময় তাতে ছেদ পড়ল। একদিন দুদিনে তেমন পার্থক্য নজরে পড়বে না। তবে দিনের সংখ্যা বাড়লেই দেখবেন, জীবনে বাঁচার অর্থটাই আর খুঁজে পাচ্ছেন না। স্মৃতিও বেইমানি শুরু করেছে। পুরনো কথা তো ভুলছেনই, সেই সঙ্গে নতুন কিছু ঘটলেও বেশিক্ষণ মনে রাখতে পারছেন না। পার্টনারের প্রয়োজনীয় জিনিস রেখেছিলেন, সময়ে খুঁজে পেলেন না। পার্টনার তো রেগেই কাঁই। দু’কথা শুনিয়েও দিলেন। সামান্য জিনিসের জন্য কথা শোনানো, আপনিও আবেগতাড়িত হয়ে পড়লেন। দু’জনের মুখ দেখাদেখি বন্ধ। বেশিদিন চলতে থাকলেই সমস্যা। এসব এড়াতে চাইলে শারীরিক সম্পর্কে বরাবরের ইতি টানা যাবে না। তাহলেই দেখবেন ফেলে আসা ২৫টি বসন্ত যেন নতুন করে যাপন করছেন।

ছ’হাজার বয়স্ক দম্পতি আর পাঁচটি কাজের মতোই যৌন চাহিদাকেও গুরুত্ব দিয়েছিলেন। তাই সমীক্ষার পর দেখা গিয়েছে। তাঁদের দাম্পত্য অটুট। প্রথম দেখাতে কীভাবে প্রপোজ করেছিলেন, তাও মনে করে বলতে পারছেন। কুঁচকে যাওয়া গালেও লজ্জার লাল আভা, সেই ভালবাসাকেই ইঙ্গিত করে।

[প্রথম ডেটে যাচ্ছেন? মাথায় রাখুন কিছু তথ্য]

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং