BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে পাকিস্তানে নিষিদ্ধ PUBG, এবার কি ভারতের পালা?

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 3, 2020 10:06 pm|    Updated: July 3, 2020 10:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে নিষিদ্ধ হয়েছে টিকটক-সহ ৫৯টি অ্যাপ (App)। সেদিনের সেই ৫৯টি অ্যাপের তালিকায় এক নিশ্বাসে চোখ বুলিয়েছিলেন পাবজি খেলোয়াররাও। তালিকায় PUBG-এর নাম না দেখে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছিলেন তাঁরা। কিন্তু সেই স্বস্তি ধোপে টিকবে তো? কারণ, এই জনপ্রিয় অনলাইন গেম PlayerUnknown’s Battlegrounds বা সংক্ষেপে PUBG-এর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠছে। আর সেই অভিযোগে ইতিমধ্যে পাকিস্তানে নিষিদ্ধ হয়ে গিয়েছে এই অ্যাপ। তাহলে কি এবার ভারতের পালা? উঠছে প্রশ্ন।

পাকিস্তান টেলিকম অথরিটির (PTA) তরফে বলা হয়েছে, ‘PUBG-র বিরুদ্ধে PTA-র কাছে অসংখ্য অভিযোগ জমা পড়েছে। এই গেম (PUBG) এক ধরনের আসক্তি তৈরি করে। সময়ের অপচয় করে। শুধু তাই নয় PUBG শিশুদের স্বাস্থ্য এবং মানসিক অবস্থার উপরে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।’ এমনকী, পাকিস্তানে কয়েকজন পাবজি (PUBG) খেলোয়ার ইতিমধ্যে আত্মহত্যা করেছেন। এরপরই পাকিস্তানে এই অনলাইন নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে। লাহোর হাই কোর্টের নির্দেশে PUBG-র বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। ভারতেও আত্মহ্ত্যার ঘটনা সামনে এসেছে। আর এই আত্মঘাতীদের তালিকায় কিশোরের সংখ্যা সর্বাধিক।

[আরও পড়ুন : রাজ্যে প্রথম, পরিযায়ী শ্রমিকদের কর্মসংস্থানে অনলাইন পোর্টাল চালু পুরুলিয়ায়]

তবে পাকিস্তানের এই নিষেধাজ্ঞা সাময়িক। এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে জনগণের মতামত চাওয়া হয়েছে। PTA তার বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘অনলাইন গেম PUBG সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মতামত জানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে PTA। আগামী ১০ জুলাই, ২০২০ মধ্যে এই বক্তব্য জানাতে হবে। [email protected] এই আইডিতে মেল করার জন্য সবার কাছে আবেদন করা হচ্ছে।’

[আরও পড়ুন : করোনা আবহে ফের বিনিয়োগ, এবার Jio’র হাত ধরল ইনটেল ক্যাপিটাল]

এরপরই ভারতের বিভিন্ন মহলে আলোড়ন তৈরি হয়েছে। ভারতের যুবপ্রজন্মও এই অনলাইন গেমে আসক্ত হয়ে পড়ছে। তার প্রভাব পড়ছে তাঁদের মানসিক স্বাস্থ্যেও। এর ফলে ভারতেও খুব শীঘ্রই যে এই গেম নিষিদ্ধ করা হবে না, তা কিন্তু জোর দিয়ে বলা সম্ভব হবে না। প্রসঙ্গত, পাবজি দক্ষিণ কোরিয়ার একটি অ্যাপ। কিন্তু সেই পাবজির মূল সংস্থাটির সঙ্গে চিনের সংস্থা Tencent গাঁটছড়া বেঁধেছে। ইতিমধ্যে ৫৯টি চিনা অ্যাপ ভারতে নিষিদ্ধ হয়েছে। ফলে পরবর্তী তালিকায় যে এই অ্যাপের নাম থাকবে না, তা জোর দিয়ে বলা যায় না। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement