২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাইক্রোসফটের সঙ্গে কড়া টক্কর, TikTok কেনার ইচ্ছাপ্রকাশ করল টুইটার!

Published by: Sulaya Singha |    Posted: August 9, 2020 7:38 pm|    Updated: August 9, 2020 7:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিনের ছত্রছায়া থেকে বের করে এনে আমেরিকায় টিকটককে টিকিয়ে রাখতে কোমর বেঁধে আসরে নেমেছে মাইক্রোসফট (Microsoft)। গত কয়েকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে, জনপ্রিয় চিনা অ্যাপটি কিনে নিতে চলেছে মাইক্রোসফট। কিন্তু এই জল্পনার মধ্যেই উঠে এল আরেকটি নাম। শোনা যাচ্ছে, ভিডিও তৈরির অ্যাপটি কেনার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছে টুইটার!

সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের খবর অনুযায়ী, টিকটকের (TikTok) চিনা মালিক বাইটডান্সের (ByteDance) সঙ্গে ইতিমধ্যেই কথা বলেছে টুইটার ইন্ক। তারাই নাকি জনপ্রিয় অ্যাপটির মালিকানা নিয়ে আমেরিকায় এর ব্যবহার বহাল রাখতে চায়। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা এক্ষেত্রে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁদের মতে, আর্থিক দিক থেকে টুইটারের থেকে কয়েক গুণ ভাল অবস্থা মাইক্রোসফটের।

[আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতারাতি সেলিব্রিটি ‘বিনোদ’! কে তিনি? কেনই বা এত জনপ্রিয়?]

জানা গিয়েছে, টুইটারের বাজারি মূলধন আনুমানিক ২৩ বিলিয়ন পাউন্ড। অর্থাৎ টিকটককে নিজেদের আওতায় আনতে যত অর্থের প্রয়োজন, প্রায় তার সমান। সেক্ষেত্রে নিজেদের পায়ের তলার মাটি শক্ত করতে আরও অর্থ জোগাড় করতে হবে টুইটারকে (Twitter)। এমন পরিস্থিতিতে কীভাবে তারা মাইক্রোসফটের সঙ্গে টেক্কা দেওয়ার কথা ভাবছে, সেটাই বুঝে ওঠা কঠিন, বলছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে অনেকের মতে, টিকটকের যা জনপ্রিয়তা, তাতে এই অ্যাপ একবার কিনে নিতে পারলে লাভের মুখ দেখা হবে সময়ের অপেক্ষা। যদিও এ নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছে টিকটক, বাইটডান্স ও টুইটার।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দাদের ব্যক্তিগত তথ্য টিকটকের মাধ্যমে চিনের হাতে চলে যাচ্ছে। সম্প্রতি এমনই ধারণার কথা প্রকাশ করে মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগ। এমনকী এই অ্যাপটিকে হাতিয়ার করে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও চিন হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে বলে দাবি করা হয়। তারপরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) ঘোষণা করেছিলেন আমেরিকায় এই অ্যাপটি নিষিদ্ধ ঘোষণা করবেন তিনি। তখনই শোনা যায় ভারতীয় ব্যবসায়ী সত্য নাদেলার সংস্থা মাইক্রোসফট নাকি টিকটক কিনে নিতে চাইছে। এমনকী সব ঠিকঠাক থাকলে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে চুক্তিও চূড়ান্ত হয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু এরই মধ্যে টুইটারের এন্ট্রিতে নতুন করে লড়াই জমে উঠেছে। এবার দেখার কার হাত ধরে আমেরিকায় চলে টিকটক।

[আরও পড়ুন: নেটদুনিয়ায় অপরাধ রুখতে তৎপর পূর্ব রেল, তৈরি হল সাইবার সেল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement