BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

সস্তায় ঘুরে আসুন পাহাড়ে, পর্যটকদের জন্য নয়া বন্দোবস্ত হোটেল মালিকদের

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 20, 2020 5:45 pm|    Updated: June 20, 2020 5:56 pm

An Images

সংগ্রাম সিংহরায়, শিলিগুড়ি: লকডাউনে বন্দি থেকে মন অস্থির? বেরু বেরু করছে? অথচ রোজগারে পড়েছে টান। ফলে ইচ্ছে থাকলেও লোভ সম্বরণ করতে হচ্ছে। ঘুরতে যাওয়ার মোটা টাকা খরচের ভয়ে আপাতত পরিকল্পনা মুলতবি রাখতে বাধ্য হচ্ছেন? তাহলে আর চিন্তা নেই। ডুয়ার্স, জলপাইগুড়ি এবং আলিপুরদুয়ারের পর্যটনকেন্দ্রগুলির যেকোনও হোটেল কিংবা হোমস্টেতে মিলবে সাধ্যের মধ্যেই ঘুরতে যাওয়ার সুবিধা। পর্যটকদের বিশেষ সুবিধার জন্য ‘ওপেন প্রাইস সিস্টেম’ (Open Price System) চালু করতে চলেছে অতিথিশালাগুলি। যাতে নিজের আয়ত্তের মধ্যেই বাজেট করে ঘুরে আসতে পারেন যেকোনও জায়গায়।

Home Stay

কি এই ‘ওপেন প্রাইস সিস্টেম’? অ্যাসোসিয়েশন ফর কনজারভেশন অ্যান্ড ট্যুরিজমের সম্পাদক রাজ বসু জানিয়েছেন, এতদিন আলাদা হোটেল, লজ কিংবা হোমস্টে-র আলাদা রুম ট্যারিফ কিংবা খরচের তালিকা ছিল। পর্যটকরা তার মধ্যে থেকে নিজেদের সাধ্যমতো বেছে নিতেন। কিন্তু ‘ওপেন প্রাইস সিস্টেমে’ কোনও ট্যারিফ থাকবে না। তার বদলে পর্যটককে তার নিজস্ব বাজেট জানাতে হবে। যেমন ধরুন হোটেল কিংবা লজ মালিককে কোনও পরিবারের তরফে জানানো হল স্বামী, স্ত্রী ও দুটি শিশু মিলিয়ে চারজন তিন দিন থাকতে চান। তাঁদের বাজেট দশ হাজার টাকা। হোটেল মালিক তার মধ্যেই লাভ রেখে ওই বাজেটের মধ্যেই থাকা-খাওয়ার সুবন্দোবস্ত করে দেবেন। ফলে আপনার সাধ্যের মধ্যেই হবে সাধপূরণ।

Dooars

[আরও পড়ুন: আনলক ওয়ানে ঘুরতে পাওয়ার প্ল্যান? বর্ষায় আপনাকে স্বাগত জানাতে নতুন রূপে সেজেছে মাইথন]

তবে এই ধরনের উদ্যোগ বিক্ষিপ্তভাবে লাভজনক হলেও সরকারি তরফে সামগ্রিক হস্তক্ষেপ দাবি করে সমস্ত কিছু স্বাভাবিক করার দাবি জানিয়েছেন হিমালয়ান হসপিটালিটি এন্ড ট্রাভেল ডেভলপমেন্ট নেটওয়ার্কের সভাপতি সম্রাট সান্যাল। তিনি বলেন, “সরকারি তরফে ছাড়পত্র রয়েছে। তবে স্থানীয়রা অনেক জায়গাতেই পর্যটকদের আগমনে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা প্রকাশ করছেন। তাই সকলকে বোঝাতে হবে সুস্থ থাকলেই বেড়াতে যান। দায়িত্ব সরকারি কোনও এজেন্সিকে নিতে হবে। তা জেলাশাসক, বিডিও, কিংবা পঞ্চায়েত প্রধান, গ্রামসভা যে কেউই হতে পারেন। তাছাড়াও স্বাস্থ্য দপ্তরের গাইডলাইন মেনে প্রত্যেক পর্যটক এবং অতিথিশালার পরিচালকদের চলতে হবে। তাঁর সঙ্গে কোনও রকম আপস করা হবে না। পাশাপাশি কোনও পর্যটক যদি নিজেরাই অতিথিশালায় গিয়ে রান্না করে খেতে চান, সেই সুযোগও থাকছে।”

Dooars

ইতিমধ্যেই জলদাপাড়াতে বিহারের একদল পর্যটক আনলক ওয়ানের মধ্যেই হইহুল্লোড় করে গিয়েছেন। পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব জানিয়ে দিয়েছেন, পর্যটন কেন্দ্রগুলো খোলার অনুমতি রয়েছে। ট্যুরিজম স্টেক হোল্ডাররা নিজেদের মতো করে আকর্ষণ বাড়াতে কোনও ব্যবস্থা নিলে সরকারের তরফে আপত্তি নেই।

Dooars

[আরও পড়ুন: পর্যটকদের জন্য সুখবর, সুন্দরবন ভ্রমণের ছাড়পত্র দিল বনদপ্তর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement