৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নির্বাচন ‘১৯

৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ছ’ঘণ্টার ব্যবধানে আটটি বিস্ফোরণ৷ কেঁপে উঠেছে শ্রীলঙ্কা৷ প্রাণহানি হয়েছে কমপক্ষে ১৫৯ জনের৷ এই ঘটনার পর থেকে চিন্তার ভাঁজ পর্যটন সংস্থার আধিকারিকদের কপালে৷ গ্রীষ্মের ভরা মরশুমে পর্যটকদের আনাগোনা বন্ধ হওয়ায় আর্থিক সংকটের আশঙ্কায় পর্যটন সংস্থার আধিকারিকরা৷

[ আরও পড়ুন: কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে শ্রীলঙ্কায় ফের জোড়া বিস্ফোরণ, জারি কারফিউ]

প্রতি বছর বহু ভারতীয়ই বেড়াতে যান শ্রীলঙ্কায়৷ পরিসংখ্যান বলছে ২০১৮ সালে কমপক্ষে ২ লক্ষ ৩০ হাজার ভারতীয়র গন্তব্য ছিল সমুদ্রে ঘেরা এই দেশ৷ মে-র শুরু থেকেই সাধারণত শ্রীলঙ্কায় বেড়াতে যাওয়ার হিড়িক লেগে যায়৷ পর্যটকদের আগাম বুকিং মনে আশা জুগিয়েছিল পর্যটন সংস্থাগুলির৷ ২০১৮-র পরিসংখ্যানকে ছাপিয়ে যাবে বলেই আশা ছিল কর্তৃপক্ষের৷ কিন্তু রবিবার সকালে সেই আশায় জল ঢেলেছে সন্ত্রাসবাদীরা৷ এদিন সকালে ইস্টারের প্রার্থনা চলাকালীন প্রচণ্ড বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে তিনটি চার্চ এবং তিনটি হোটেল৷ তাতেই প্রাণ হারান অন্তত ১৫৬ জন৷ এখানেই সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের শেষ নয়৷ ঠিক কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে আবারও বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে দু’টি জায়গা৷ শেষ পাওয়া খবর পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে৷ ভয়ে কাঁটা এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কায় থাকা পর্যটকরা৷ যদিও তাঁরা সকলেই সুস্থ রয়েছেন বলে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে৷ তাঁদের নিরাপদ আশ্রয়ে ফেরানোর তোড়জোড়ও শুরু হয়ে গিয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ, ক্রমশই বাড়ছে মৃতের সংখ্যা]

এদিকে, এই বিস্ফোরণের পর কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে পর্যটন সংস্থার আধিকারিকদের কপালে৷ Yatra.com-এর আধিকারিক শরৎ ধল বলেন,‘‘গ্রীষ্মে বেড়াতে আসার জন্য অনেকেই শ্রীলঙ্কাকে বেছে নেন৷ কিন্তু এই বিস্ফোরণের জেরে বুকিং বাতিল হবে বলেই মনে হচ্ছে৷ আর্থিক ক্ষতিও হবে আমাদের৷’’ আরেক পর্যটন সংস্থার আধিকারিক বীণা পাটিলের গলাতেও একই আক্ষেপের সুর৷ আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন তিনিও৷ তবে কিছু কিছু পর্যটন সংস্থার আধিকারিকরা অবশ্য আপাতত শ্রীলঙ্কায় বেড়াতে পর্যটকদের নিরাপত্তা দেওয়ার কাজেই বেশি ব্যস্ত৷ বিখ্যাত পর্যটন সংস্থার কক্স অ্যান্ড কিংয়ের জনসংযোগ আধিকারিক করণ আনন্দ বলেন,‘‘আমাদের সমস্ত পর্যটক নিরাপদে রয়েছেন৷ তবে আকস্মিকতায় ভয় পেয়ে গিয়েছেন তাঁরা৷ পর্যটকদের দ্রুত গন্তব্যে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে৷’’

[ আরও পড়ুন: চামড়াহীন শরীর নিয়ে জন্ম, বিরল রোগাক্রান্ত শিশুকে বাঁচানোর চ্যালেঞ্জ চিকিৎসকদের]

পর্যটকদেরও অবশ্য একই বক্তব্য৷ এমন ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর আর সেদেশে যাওয়ার কথা ভাবতেও চাইছেন না অনেকে৷ যাঁরা আপাতত শ্রীলঙ্কায় রয়েছেন,তাঁদের চোখে-মুখে আতঙ্কের ছাপ৷ কতক্ষণে বাড়ি ফিরতে পারবেন, অপেক্ষার প্রহর গুনছেন ভীত সন্ত্রস্তরা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং