২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মন্দার বাজারেও সোনায় সোহাগা দেশের দুই বেসরকারি টেলিকম সংস্থার। শুক্রবার একলাফে বাড়ল ভোডাফোন আইডিয়া এবং ভারতী এয়ারটেলের শেয়ার দর। বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে এদিন সকাল ১০টা ৪৮ মিনিটে লেনদেনকারীদের তা দেখে চোখ কপালে উঠেছে! বলা হচ্ছে, মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও থেকে অন্য নেটওয়ার্কে মুফতে কল করার সুবিধায় ইতি হতেই, দুই ‘টেলিকম জায়ান্ট’-এর পোয়াবারো।

[আরও পড়ুন: আর ফ্রি নয়, কল করতে এবার বাড়তি টাকা গুনতে হবে জিও গ্রাহকদের]

এদিন ভোডাফোন আইডিয়া-র শেয়ার দর লাফিয়ে ১৮ শতাংশ বেড়েছে। আগস্টের পর ওই সংস্থার শেয়ার দর একদিনে এতটা বাড়েনি। অন্যদিকে, ভারতীর শেয়ার দর বেড়েছে ৪.৮ শতাংশ। সেইসঙ্গে তৃতীয় দিনেও রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার দরের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত রয়েছে। বস্তুত, দেশ জুড়ে যখন একের পর এক মোবাইল সংস্থা রিলায়েন্স জিও-র সঙ্গে লড়াইয়ে জমি ছাড়ছে, ঠিক তখনই এবার দীপাবলির আগে নতুন ধামাকা জিও-র। বুধবার রিলায়েন্স জিও-র তরফে জানানো হয়েছে, এবার থেকে অন্য নেটওয়ার্কে কল করলে জিও গ্রাহকদের প্রতি মিনিটে ৬ পয়সা খরচ হবে। জিও-র তরফে জানানো হয়েছে টেলিকম রেগুলেটারি অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার (ট্রাই) ঠিক করে দেওয়া ইন্টারকানেক্ট ইউসেজ চার্জের (আইইউসি) জন্য গ্রাহকদের অন্য নেটওয়ার্কে কল করাতে অতিরিক্ত দাম দিতে হবে।

বাজার বিশেষজ্ঞরা জিও-র নতুন সিদ্ধান্তকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন। কারণ, রিলায়েন্সের এই পদক্ষেপে বোঝা যাচ্ছে, তারা এবার বাজার দখলের প্রতিযোগিতা ছেড়ে সংস্থার বৃদ্ধি নিয়ে মনযোগী হচ্ছে। আর তার ফলে পুরো টেলিকম ক্ষেত্রটিই লাভবান হবে।  ২০১৬ সালে ফ্রি কল আর কম দামে ডেটা পরিষেবা নিয়ে জিও বাজারে এসেই টেলকম ক্ষেত্রে শীর্ষে পৌঁছে যায়। অন্যদিকে, তার প্রতিযোগীরা প্রবল চাপে পড়ে যায়। বিশেষ করে ভোডাফোনের শেয়ার দর ক্রমে ৭১ শতাংশ নেমে যায়। রিলায়েন্স বাজারে আসার পর থেকে এ পর্যন্ত তার প্রতিযোগী সংস্থাগুলিকে ইউজার ফি বাবদ ১৩,৫০০ কোটি টাকা দিয়েছে। ট্রাই আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে এই চার্জ তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু পরে তারা জানায়, এর জন্য আরও সময় লাগবে। অগত্যা, জিও অন্য নেটওয়ার্কে কলের ক্ষেত্রে চার্জ ধার্য করে।

[আরও পড়ুন: দিওয়ালি উপলক্ষে ফের বড়সড় ছাড় দিতে চলেছে আমাজন-ফ্লিপকার্ট, জেনে নিন খুঁটিনাটি]

তবে জিও-র এই সিদ্ধান্ত অক্সিজেন জোগাবে ভোডাফোন আইডিয়া ও ভারতী এয়ারটেলের মতো সংস্থাগুলিকে। প্রবল প্রতিযোগিতার মুখে আর্থিক সংকটে চলা সংস্থাগুলিও এবার কল চার্জ বাড়ানোর সাহস পাবে। ফলে অতিরক্ত রাজস্ব আদায়ে আবার সংস্থাগুলি ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। ‘ফ্রি কল’-এর সুবিধা না পেলে গ্রাহক পছন্দ মতো সার্ভিস প্রোভাইডার বেছে নেবে। তখন ভাল নেটওয়ার্কই হবে মূল বিবেচ্য।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং