২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পেটে অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন এক ব্যক্তি। কারণ জানতে তাঁর পেটে এক্স-রে করার সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা। আর তার রিপোর্ট বেরতেই চোখ কপালে ওঠে তাঁদের।

[আরও পড়ুন- কাশ্মীরে সন্ত্রাস ছড়ানোর নয়া পরিকল্পনা, নেপালে কন্ট্রোল রুম বানাল আইএসআই]

দেখা যায়, ওই ব্যক্তির পেটে গাঁজার ছিলিমের পাশাপাশি রয়েছে চাবি, চেন, পেরেক ও কয়েন-সহ মোট ৮০টি জিনিস। অভূতপূর্ব এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের উদয়পুরে। এক্স-রে রিপোর্ট হাতে পেয়েই আর দেরি করেননি চিকিৎসকরা। চারজনের একটি দল দেড়ঘণ্টা ধরে ওই ব্যক্তির পেটে অপারেশন করেন। তারপরই তাঁর পেট থেকে উদ্ধার হয় ৮০০ গ্রামের মোট ৮০টি ধাতব বস্তু।

এপ্রসঙ্গে অপারেশনের দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক ডিকে শর্মা বলেন, “এই বিষয়টিকে বিরল ঘটনা হিসেবেই দেখছি আমরা। সম্প্রতি পেটে ব্যথা নিয়ে আমাদের এখানে ভতি হয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। পরে তাঁকে এক্স-রে করতে বলা হয়। সেই রিপোর্ট দেখেই চমকে উঠি আমরা। দেখা যায় ওই ব্যক্তির পেটের ভিতরে পেরেক-সহ ছোট ও বড় মিলিয়ে অনেকগুলি ধাতব জিনিস রয়েছে। ওই ব্যক্তি মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ার পাশাপাশি মাদক সেবন করেন বলেও জানতে পেরেছি। অনেকদিন ধরে পেটে যন্ত্রণা হলেও তিনি সবার কাছে বিষয়টি গোপন রেখেছিলেন। পরে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাওয়ায় বাড়ির লোকজনকে জানান। তাঁরা এসে ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভরতি করেন।” হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমানে ওই ব্যক্তির শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল আছে। তাঁর চিকিৎসা চলছে।

[আরও পড়ুন- বাবুল ও দেবশ্রীর শপথের সময় ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান, শুরুতেই বিতর্ক লোকসভায়]

তবে এটাই প্রথম নয়, কয়েকদিন আগে রাজস্থানের বুন্দিতে এক ব্যক্তির পেট থেকে ১১৬টি পেরেক উদ্ধার করেন চিকিৎসকরা। ওই ব্যক্তিও মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গিয়েছিল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং