৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্রমশ বাড়ছে বায়ুদূষণ। সভ্যতা যতো এগোচ্ছে ততই বাতাসে মিশছে বিষ। টালমাটাল হয়ে পড়েছে প্রকৃতির বিভিন্ন উপাদানের মধ্যে ভারসাম্য। দূষণরূপী  ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইনের গ্রাস হতে চলেছে সমগ্র মানবজাতি। তবে শুধু মানুষই নয়, বায়ুদূষণের পরিণাম ভোগ করতে হচ্ছে অবলা প্রাণীদেরও। বায়ুদূষণ থেকে বাঁচতে লোকে নাক-মুখ ঢাকে মাস্ক বা মুখোশে। দক্ষিণ কোরিয়ায় বায়ুদূষণের পরিস্থিতি এখন এতই খারাপ যে ইদানীং পোষা কুকুরকেও সেখানে মাস্ক পরানোর চল শুরু হয়েছে।

[আরও পড়ুন: পুনর্নির্বাচনেও হল না শেষরক্ষা, ইস্তানবুল খুইয়ে বিপাকে এরদোগান]

একটি সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, বিশ্বের প্রথম সারির দেশগুলির মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ার বায়ুদূষণ পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ। ফলে নিজেদের স্বাস্থ্যের চিন্তার পাশাপাশি পোষাদেরও স্বাস্থ্য নিয়ে এখন উদ্বেগে রয়েছেন দেশটির মানুষ। রাজধানী সিওলের চোই ইও-জিন তাঁদেরই একজন। জাপানি শিবা প্রজাতির একটি কুকুর পোষেন তিনি। বায়ুদূষণের ভয়াবহতা বোঝাতে চোই বলেন, “রাস্তায় বেরলেই দূষিত বায়ু থেকে বাঁচতে আমি মুখে মাস্ক পরি। তবে আমার পোষা কুকুরটির মাস্ক থাকত না বলে ওর জন্য চিন্তা হত আমার। এরপর অনলাইনে ঘাঁটাঘাঁটি করে জানলাম, বায়ুদূষণ কুকুরের স্বাস্থ্যের ওপরও বিরূপ প্রভাব ফেলে। দূষণ থেকে বাঁচতে তাদেরও মাস্ক প্রয়োজন। তাই আর দেরি না করে আমার পোষ্যের জন্য একটি মাস্ক কিনে ফেলেছি। বাইরে বেরোলে তাকে সেটি পরিয়ে দি। “

এদিকে বায়ুদূষণ নিয়ে চোই-এর মতো সিওলের অনেকেই উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছেন।  ফলে পোষ্য কুকুরদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে অনেকেই ভয়াবহ বায়ুদূষণ থেকে বাঁচাতে কুকুরদেরও মাস্ক পরাচ্ছেন। ইওন ওন-গিয়ুং এমনই আরেক মহিলা। তাঁর একটি পুডল প্রজাতির কুকুর রয়েছে। ইওন বলেন, “কখনও কখনও টানা কয়েক দিন সিওলের বাতাস ধোঁয়া-ধুলোয় ভারী হয়ে থাকে। বাইরে হাঁটতে বের হওয়ারও পরিস্থিতি থাকে না তখন। তবে আমার পোষা কুকুর এত দিন ঘরে বসে থাকতে চায় না। তাই আমি ওকে মাস্ক পরিয়ে বাইরে হাঁটতে বেরোই৷”

[আরও পড়ুন: মধ্যপ্রাচ্যে ফের যুদ্ধের মেঘ, ইরানের মিসাইল সিস্টেমে আঘাত হানল আমেরিকা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং