BREAKING NEWS

১৪ মাঘ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ঘাসপাতা ছেড়ে মাছ-মাংস খাচ্ছে গরু! আজব দাবি গোয়ার মন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: October 21, 2019 4:12 pm|    Updated: October 21, 2019 4:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গরু নাকি ঘাসপাতা ছেড়ে খাওয়া শুরু করেছে মাংস-আর মাছ ভাজা। না, আমরা বলছি না। একথা বলছেন গোয়ার মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা মাইকেল লোবো। তাঁর দাবি, গোয়ার দুটি গ্রামের ৭৬টি গরু ঘাসপাতা খাওয়া ছেড়ে মাংস খাওয়া শুরু করেছে। শুকনো ঘাস, এমনকী পশুখাদ্যও তাদের পছন্দ হচ্ছে না। শেষমেশ চিকিৎসকদের দিয়ে তাঁদের চিকিৎসা করিয়ে ফের নিরামিষাশী করার উদ্যোগ নিয়েছে গোয়ার বিজেপি সরকার। গোটা রাজ্য থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়োগ করা হয়েছে ওই ৭৬টি গরুর চিকিৎসার্থে।


শনিবার একটি অনুষ্ঠানে গোয়ার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মাইকেল লোবো বলেন, “কলঙ্গুট ও আশেপাশের গ্রামে কিছু রাস্তার বেওয়ারিশ গরুকে একটি গোশালায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পশু চিকিৎসকদের দিয়ে তাঁদের চিকিৎসা করানো হচ্ছে। দেখাশোনা করা হচ্ছে। এই গবাদি পশুগুলি আমিষাশী হয়ে গিয়েছে। আগে এগুলি নিরামিষাশী ছিল। আমরা শুরু থেকেই বলে আসছি, গবাদি পশু মানেই নিরামিশাষী। কিন্তু কলাঙ্গুটের এই গরুগুলি বদলে গিয়েছে। ওরা আর ঘাসও খায় না, দানাও খায় না। এমনকী, সুস্বাদু পশুখাদ্যও খায় না।”

[আরও পড়ুন: দালের মেহেন্দির গান গেয়ে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন চণ্ডীগড়ের ট্র্যাফিক পুলিশ, ভাইরাল ভিডিও]

লোবোর দাবি, এই গরুগুলি কিছুদিন ধরে মাংস ও মাছের উচ্ছিষ্ট খাবার খাচ্ছে। গ্রামবাসীরাই তাঁদের এই ধরনের খাবার খাওয়াচ্ছে। এই ধরনের আমিষ খাবার খাওয়ার ফলে ওদের সিস্টেম মানুষের মতো হয়ে গিয়েছে। স্থানীয়রাই মাস-মাংস খাইয়ে ওদের এরকম করে দিয়েছে। আগে ওরা বিশুদ্ধ নিরামিষাশী ছিল। কিন্তু, এখন নিরামিষ খাবার দেখলে ঘুরেও তাকায় না। শুধু মাছ-মাংসই খাচ্ছে। আগামী ৪-৫দিন অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের দিয়ে ওদের দেখভাল করলেই ওরা আবার নিরামিষ খাওয়া শুরু করবে।

[আরও পড়ুন: ‘আপনার টাকা নেব না’, বৃদ্ধার মাথায় চুমু খেয়ে জানাল ‘দয়ালু’ ডাকাত]

লোবোর এই যুক্তিতে অবশ্য বেশ হাসাহাসি পড়ে গিয়েছে নেটদুনিয়ায়। অনেকেই বলছেন, ওঁর কথায় কোনও যুক্তি খুঁজে পাচ্ছেন না। যে গোমাতাকে বিজেপি সমর্থকরা দেবজ্ঞানে পুজো করেন, তাকে নিরামিষাশী বলার ধৃষ্ঠতা লোবো কীভাবে দেখালেন, সেটা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেকে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement