BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘সাক্ষাৎ মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচেছি’, জনপ্রিয়তার লোভে ভয়াবহ অভিজ্ঞতার সাক্ষী টিকটকার

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 27, 2020 4:51 pm|    Updated: February 27, 2020 4:51 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টিকটক ভিডিও তৈরি করার জন্য কত কিছুই না করেন টিকটকাররা। কখনও ছুটন্ত ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়েছেন কেউ তো আবার কখনও তার চেয়েও বেশি বিপজ্জনক কিছু কার্যকলাপ করে থাকেন। এবার টিকটক ভিডিওর জন্য বরফের চাদরে ঢাকা জলে সাঁতার কাটলেন এক যুবক। ইনস্টাগ্রামে সেই ভিডিও শেয়ার করেন ওই টিকটকার। শেয়ার করলেন নিজের অভিজ্ঞতাও।

জ্যাসন ক্লার্ক নামে ওই টিকটকারের ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, একটি লেকের জল বরফে ঢেকে গিয়েছে। তার নিচে রয়েছে হিমশীতল জমা জল। বরফের চাদর হাত দিয়ে সরিয়ে জলে ডুব সাঁতার কাটতে শুরু করেন তিনি। জ্যাসন বলেন, “আমি কখনও মৃত্যুকে এত কাছ থেকে দেখিনি। আমি হিমশীতল ওই জলে সাঁতার কাটতে শুরু করার পরেই বুঝতে পারি আমার চোখের মণিও স্থির হয়ে গিয়েছে। যখন জলে সাঁতার কাটতে শুরু করলাম, তখনই আমার হাত-পা জমে গিয়েছিল। শেষের দিকে আমি আর ভাল করে শ্বাস নিতেও পারছিলাম না। মনে হচ্ছিল কেউ আমার শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করছে। শারীরিক সমস্যা হচ্ছে বুঝতে পেরেই বরফের ভিতর থেকে বাইরে বেরিয়ে আসি। লক্ষ্য করি আমার হাত, পা-সহ গোটা শরীর প্রায় অবশ হয়ে গিয়েছে। বেশ কয়েকবার জোরে শ্বাস নিই। তারপর কিছুটা সুস্থ হই আমি।”

 
 
 
 
 
View this post on Instagram
 
 
 
 
 
 
 
 
 

I have never been this close to dying. I didn’t think my eyeballs would freeze so quick. The surface of the water where the hole was didn’t look any different than the bottom of the ice. When I flipped around and felt solid ice I thought I was at the hole. When I wasn’t that’s when I decided to head back and follow the dust I kicked up. The dust I kicked up had drifted and led me further away. I then tried to break the ice with my back, you can see in the video. I don’t know what made me turn around one last time. I was so short on breath I couldn’t really see anymore. I had accepted that was it and I wasn’t going to make it. I swung my hand at what I though was just a lighter spot of ice and my hand came through. I then got a ton of energy to stand up. It took 2-3 breaths to regain my vision after resurfacing. Aftermath is in the other video. 📷: @abbytodolist was filming. When there are scary moments I joke a lot. She genuinely thought it was another one of my jokes and didn’t recognize the severity of the situation.

A post shared by Jason Clark (@jasontodolist) on

[আরও পড়ুন: কান্নার বালাই নেই, দৃষ্টিতেই যেন ভস্ম করবে! জন্মের পরই ভাইরাল শিশু]

বরফের চাদর সরিয়ে সাঁতার কাটার ভিডিও ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয়নি। হু হু করে নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে জ্যাসনের ভয়ংকর ভিডিও। নেটিজেনদের একাংশ ওই ঠান্ডায় ডুব দেওয়ার পর জ্যাসনের কী অবস্থা হল, তা নিয়ে ভাবনায় ব্যস্ত। নেটিজেনের একাংশ অবশ্য, ঠান্ডাকে কাবু করে জ্যাসনের বরফ সরিয়ে জলে ঝাঁপ দেওয়ার সাহসকে কুর্নিশ জানিয়েছেন। আবার কারও মতে, শুধুমাত্র জনপ্রিয়তার আশায় ঝুঁকি নিয়ে টিকটক ভিডিও তৈরি করা মোটেও ভাল কথা নয়। তাই বিপজ্জনক দিকটির কথা মাথায় রেখে টিকটক ভিডিও তৈরির পরামর্শ দিয়েছেন কোনও কোনও নেটিজেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement