৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বছরের একটাই সময় – সেরা সময়। দেশ,বিদেশ যেখানে যত বাঙালি আছেন, সকলে মেতে ওঠেন শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজোয়। কয়েকটা দিন ভক্তিশ্রদ্ধার পাশাপাশি আনন্দ চেটেপুটে উপভোগ করে নেওয়া। সকলের মনে একটাই প্রার্থনা, বছরের বাকি সময়টা যেন নিরাপদে, নির্বিঘ্নে কাটে। কিন্তু ভেবে দেখেছেন কি, এই ক’টা দিন আপনি যাতে ভালভাবে কাটাতে পারেন, তার জন্য কী কী
করণীয়? ধর্মীয় বিশেষজ্ঞদের মতে, দেবী আরাধনার দিনগুলোয় কিছু কিছু কাজ না করলেই নিশ্চিন্ত। বিপদ একেবারে কাছে ঘেঁষবে না। কী কাজ সেসব, একঝলকে দেখে নিন।

[আরও পড়ুন: পাঠশালায় শেখানো হচ্ছে চণ্ডীপাঠ, শ্লোক শিখতে লম্বা লাইন পুরোহিতদের]

চুল কাটবেন না
– যাঁরা উপবাস করে রোজ মা দুর্গার চরণে পুজো দিচ্ছেন, তাঁরা অবশ্যই এই সময়ে চুল কাটবেন না। পুরুষরা দাড়ি কামানোর বিষয়েও এই নিয়ম মেনে চলুন। পুজোর দিনগুলো কাটবে নির্বিঘ্নে।

নখ কাটা চলবে না
– চুল-দাড়ির সঙ্গে সঙ্গে পুজোর দিনগুলোয় নখ কাটাও এড়িয়ে চলুন। অন্তত পুজোর ৫টা দিন নখ কাটবেন না। নারী-পুরুষ উভয়ের জন্যই এই পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

স্থাপিত ঘটের দিকে নজর
– মা দুর্গার মর্ত্যে আগমনে যে ঘট স্থাপন করেন আপনি, সেই ঘটের প্রতি যত্নশীল হতে হবে। তাকে অপবিত্র করবেন না। খেয়াল রাখবেন যাতে ঘট যাতে জল ভরতি থাকে।

অখণ্ড জ্যোতি সদা জ্বালিয়ে রাখুন

-এই বিশেষ উৎসব উপলক্ষে যে প্রদীপটি জ্বালাচ্ছেন সেই জ্যোতি যাতে নির্বাপিত না হয়, সেদিকে সর্বক্ষণ নজর রাখতে হবে। প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখার জন্য ঘরে সবসময়ে কাউকে না কাউকে উপস্থিত থাকতে হবে।

ঘুমের অভ্যেস বদলান
– বছরের এই সময়ে যাঁরা নিষ্ঠাভরে পুজো করছেন, তাঁদের ঘুমের অভ্যেস বদলানো দরকার। বিষ্ণু পুরাণ বলছে, দিবানিদ্রা ভুলেও নয়। কারণ, আপনি যতই পুণ্যের কাজ করুন, ঘুম সব ভেস্তে দিতে পারে। তাই সাবধান হোন।

আমিষ খাবার বর্জন করুন
– রসুন, পিঁয়াজ-সহ সমস্ত আমিষ খাবার এই সময়ে বর্জন করুন। ভাজাভুজিও খাবেন না। এসবের কারণে শরীর অযথা অসুস্থ হতে পারে। শুদ্ধ আচারে পুজো করতে হলে, এই সময়ে নিরামিষ খাওয়াই রীতি।

[আরও পড়ুন: পুজোয় দুই বাংলার বিভেদ ভুলিয়ে দেন ৪৭৬ বছরের পুরনো নস্করি মা]

অসুস্থ অবস্থায় উপোস নয়
– নিষ্ঠাভরে পুজো অবশ্যই করবেন, কিন্তু নিজের শরীরকে কষ্ট দিয়ে নয়। অসুস্থ অবস্থায় একেবারেই উপোস করে পুজো নয়। জোর করেও উপোস নয়। অন্তত কিছুটা খাওয়াদাওয়া করতেই হবে।

এই কয়েকটি নিয়ম মানলেই শারদোৎসবের কয়েকটি দিন নির্বিঘ্নে কাটবে। সুন্দর, আলোকময় হবে দিনগুলি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং