৪ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিষেবা বন্ধ করে জেট এয়ারওয়েজ। গত কয়েক মাস ধরেই তীব্র আর্থিক সংকটে ভুগছিল বিমানসংস্থাটি। আপৎকালীন সাহায্য না পেয়ে শেষ পর্যন্ত পরিষেবা বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে বিমানসংস্থাটি। এর জেরে কর্মহীন হয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। বিপাকে পড়েছেন বিমানসংস্থার সঙ্গে যুক্ত কর্মীদের পরিবারের সদস্যরা। সেই সঙ্গে সমস্যায় পড়ছে বিসিসিসিআই। আসলে, বিশ্বকাপের জন্য জেট এয়ারওয়েজে অ্যাডভান্স বুকিং করে রেখেছিল বিসিসিআই। আগামী ২২ মার্চ জেটের বিমানেই উড়ে যাওয়ার কথা ছিল ভারতীয় দলের। কিন্তু, বিমানসংস্থাটিই এখন বন্ধ। তাই শেষ মুহূর্তে বিকল্প ব্যবস্থার সন্ধান করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থার আধিকারিকদের।

[আরও পড়ুন:  আইপিএলে ৫০০ কোটি টাকার বেটিং চক্রের পর্দাফাঁস, চাঞ্চল্য ক্রিকেট মহলে]

পূর্ব পরিকল্পনামতো আইপিএলের পরপরই ইংল্যান্ডে উড়ে যাওয়ার কথা ভারতীয় ক্রিকেট দলের। দিন ঠিক করা হয়েছিল ২২ মে। সেইমতো আগেভাগেই জেট এয়ারওয়েজে ৩০টি বিজনেস ক্লাসের টিকিট কেটে রেখেছিল বিসিসিআই। কিন্তু বিমানসংস্থাটি পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ায় এখন বিকল্প উড়ানের কথা ভাবতে হচ্ছে বোর্ডকে। কিন্তু, এত কম সময়ের মধ্যে ৩০টি বিজনেস ক্লাসের টিকিট জোগাড় করা চাট্টিখানিক কথা নয়। বিসিসিআই অবশ্য আশাবাদী সময়মতোই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

[আরও পড়ুন: ধাওয়ানকে মানকড়িংয়ের চেষ্টা! অশ্বিনকে মোক্ষম জবাব ‘গব্বরের’]

মুম্বই মিরর-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বিসিসিআইয়ের এক আধিকারিক বলেন, “এটা আমাদের কাছে একটা চ্যালেঞ্জিং কাজ। তবে, আমরা আশাবাদী সময়মতোই বিশ্বকাপে পৌঁছে যাবে দল।” জেটের বিকল্প হিসেবে ফ্লাই এমিরেটস এবং ভার্জিন এয়ারলাইনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন আধিকারিকরা। যদি, ৩০টি বিজনেস ক্লাসের টিকিট নাও পাওয়া যায় অন্তত ২৫টি বিজনেস ক্লাসের টিকিট জোগাড় করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। কিছু অফিসিয়ালদের নাহয় অন্য ক্লাসের টিকিট ধরিয়ে দেওয়া যাবে। কিন্তু, ক্রিকেটারদের, কোচিং স্টাফদের এবং ফিজিও টিমকে বিজনেস ক্লাসেই পাঠানো হবে ইংল্যান্ডে।আসলে বিসিসিআই এবারে অতিরিক্ত চারজন পেসারকে ইংল্যান্ডে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেজন্যই বিশ্বকাপ দলে সদস্য সংখ্যা বেশি। আধিকারিকদের আশা, দুই এয়ারলাইনের কোনও একটিতে সবকটি টিকিটই পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং