BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ভয়! কেন্দ্র নির্দেশ না দিলে চিনা স্পনসর বাতিলে ‘নারাজ’ বিসিসিআই

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 2, 2020 1:20 pm|    Updated: July 2, 2020 1:44 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: গালওয়ান সংঘর্ষের প্রেক্ষিতে দেশজুড়ে ৫৯ চিনা অ্যাপকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে দিয়েছে ভারত সরকার। লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার পারদ দিন দিন বাড়ছে। দেশজুড়ে চিনা পণ্য বয়কট করার ডাক দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তাতেও ভারতীয় বোর্ডের (BCCI) ‘ভিভো’ ঘিরে স্টান্স বিশেষ পালটাচ্ছে না! বরং বোর্ডের পক্ষ থেকে কেউ কেউ বলে দিচ্ছেন যে, কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও নির্দশিকা না এলে ‘ভিভো’র (VIVO) সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার সম্ভাবনা কম!

বোর্ডের যুক্তি, চিনকে শাস্তি দিতে গিয়ে যদি ‘ভিভো’র সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা হয়, তাতে লাভটা ‘ভিভো’রই। কারণ স্পনসরশিপের টাকাটা তারা নিজেদের দেশে লগ্নি করে দেবে। তার চেয়ে লকডাউনেও ‘ভিভো’র থেকে টাকা নিয়ে নিলে সেটাই শাস্তি। কারণ এই সময় কোথাওই কারও বিক্রি নেই। কিন্তু সে যুক্তি ধোপে টেকেনি। উলটে বোর্ডের উপর চাপ বেড়ে যায় সর্বভারতীয় অলিম্পিক সংস্থা অ্যাথলেটিক্স টিম চিনা স্পনসরের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দেওয়ায়। যার পর গত ১৯ জুন আইপিএল (IPL) গভর্নিং কাউন্সিলের পক্ষ থেকে জাননো হয় এক সপ্তাহের মধ্যে বৈঠক ডেকে ‘ভিভো’র সঙ্গে ৪৪০ কোটি টাকার স্পনসরশিপ চুক্তি খতিয়ে দেখা হবে।

[আরও পড়ুন: চলতি বছরে শুধু মুম্বইয়েই বসতে পারে আইপিএলের আসর, বাণিজ্যনগরীতেই হবে গোটা টুর্নামেন্ট!]

মুশকিল হল, এক সপ্তাহ দূরস্থান, দশ দিনেও কিছু্ হল না। উলটে এ দিন সংবাদসংস্থার খবর ধরলে, অদূর ভবিষ্যতে সেই বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনাও নেই। বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে যে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, এশিয়া কাপ (Asia Cup), কোনও কিছু নিয়েই এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। তা হলে আগেভাগে কী করে আইপিএল বৈঠক ডাকা যায়? সঙ্গে ‘ভিভো’ চুক্তি নিয়ে বলা হয়েছে যে, যদি দেখা যায় চুক্তির ‘এক্সিট ক্লজ’-এ লাভ ‘ভিভো’র হচ্ছে, বোর্ডকে বিপুল ক্ষতিপূরণ দিতে হচ্ছে, তা হলে চুক্তিছিন্ন করা হবে না।

[আরও পড়ুন: শচীন বা কোহলি নন, এই শতকের সবচেয়ে ‘মূল্যবান’ ভারতীয় টেস্ট ক্রিকেটার হলেন জাদেজা!]

রাতের দিকে বোর্ড মহলে খোঁজ নিয়ে জানা গেল, ‘এক্সিট ক্লজ’ ইত্যাদি বলার জন্য বলা। আদতে নাকি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে নির্দেশিকা না এলে ‘ভিভো’র সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন করার সম্ভাবনা বেশ কম। একমাত্র চিনা অ্যাপ বাতিলের মতো সরকারি নির্দেশিকা যদি বোর্ডের কাছে এসে পৌঁছয় যে, ‘ভিভো’কে বাতিল করতে হবে, তবেই সেটা করা হবে। নইলে তেমন সম্ভাবনাই নেই!

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement